মেইন ম্যেনু

বিজিবি-বিএসএফ রিজিয়নাল পর্যায়ের সম্মলেন

সীমান্তে হত্যাযজ্ঞ শুন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার প্রত্যয়

বাংলাদেশ ভারত বিজিবি-বিএসএফ রিজিয়নাল পর্যায়ের ৩দিন ব্যাপী সীমান্ত সম্মলেন শনিবার সম্পূন্ন হয়েছে। দু’দেশের বিজিবি-বিএসএফ সীমান্তে হত্যাযজ্ঞ শুন্যের কোঠায় নামিয়ে আনার ব্যাপারে একে অপরকে আশ্বস্ত করেছেন। ভারতের বিএসএফ স্পেশাল ডিজি বিডি শর্মা সমন্বিত প্রচেষ্টায় সীমান্তে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে আন্তরিকভাবে কাজ করবেন বলে বিজিবিকে আশ্বস্ত করেছেন। ২৫ জুন থেকে ২৮ জুন ভারতের শিলিগুড়ি ও কলিকাতায় সীমান্ত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র যশোর ২৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মতিউর রহমান সাংবাদিকদের জানান, গত ২৫ জুন বাংলাদেশ বুড়িমারী ও ভারতের চেংড়াবন্দা সীমান্ত পথে রাজশাহী রিজিয়নাল কমান্ডার বিজিবির এডিজি-এনডিসি পিএসসি লতিফুল হায়দারের নেতৃৃত্বে ১৭ সদস্যের একটি টিম ভারতে শিলিগুড়ীতে সীমান্ত সম্মেলনে যোগদান করেন। ২৭ ও ২৮জুন কোলকাতায় সৌহার্দপূর্ন পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় সম্মেলন। এদিন ভারতের দক্ষিনবঙ্গ ফ্রন্টিয়ার বিএসএফ ইন্সপেক্টর শ্রী রজনী কান্ত মিশ্রের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের একটি টিম অংশগ্রহন করেন। অবৈধ অনুপ্রবেশ, চোরাচালান, অস্ত্র, মাদক ও নারী-শিশু পাচার রোধ সহ সীমান্তের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিজিবি’র দক্ষিন-পশ্চিম রিজিউন্যাল কমান্ডার এডিজি হাবিবুর রহমান, রিজিয়নাল অফিসার গাজি আসাদুজ্জামান, খুলনা সেক্টর কমান্ডার নুরুল হুদা, সেক্টর কমান্ডার মিজানুর রহমান, গোলাম মোস্তফা। ভারতের উত্তর বঙ্গ ফুন্টিয়ার বিএসএফ ইন্সপেক্টর শ্রী সনজিব কৃষান, গোহাটি ইন্সপেক্টর শ্রী সুধীর কুমার, ডিআজি রাজেশ গুপ্তা, অশোক কুমার, গ্যানেন্দ্র সিং, এসপি তেথরী, উসপেন্দ্র বর্মন, অজিত কুমার প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই