মেইন ম্যেনু

সাকিবের শুনানি যেকোনো সময়

শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে শনিবার যে কোনো সময় শুনানির মুখোমুখি হবেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম উজ্জ্বল নক্ষত্র সাকিব আল হাসান। চলতি বছরে দ্বিতীয়বারের মতো এ ধরনের শুনানির মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

এবার সাকিবের অপরাধ ম্যানেজমেন্টের অনুমতি না নিয়ে ড্রেসিং রুম ত্যাগ করা। এরআগে গত ফেব্রুয়ারিতে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গির দায়ে তিনটি ওয়ানডে ম্যাচে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাকিব। সঙ্গে গুনতে হয়েছিল ৩ লাখ টাকা জরিমানাও।

আর ম্যানেজমেন্টের অনুমতি না নিয়ে ড্রেসিং রুম ত্যাগ করার অপরাধে শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে দিনের যে কোনো সময়ে শুনানির মুখোমুখি হবেন তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম। এ শুনানিতে মূলত বোর্ড কর্মকর্তরা সাকিবের মুখ থেকেই শুনবেন সাকিব আসলে সেদিন কার অনুমতি নিয়ে খেলা চলাকালীন সময়ে ড্রেসিংরুম ত্যাগ করেছিলেন।

এ অপরাধের কারণে সাকিবকে এক মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হতে পারে। গুণতে হতে পারে জরিমানাও।

গত ১৫ জুন বাংলাদেশ-ভারত সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটি মিরপুরের ভিআইপি গ্যালরিতে (হসপিটালিটি বক্স-৬) বসে দেখছিলেন সাকিবের স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির। মাঝপথে বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ হওয়ায় স্ত্রীর খোঁজ নিতে ওই গ্যালারিতে ছুটে চলে যান সাকিব। সেখানে গিয়ে আবার বাঁধিয়ে দেন আরেক লঙ্কাকাণ্ড।

শিশির যে গ্যালারিতে বসে খেলা দেখছিলেন তার নিচে গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডে বসে খেলা দেখছিলেন পাঁচ-ছয় জনের একদল তরুণ সমর্থক। খেলা চলাকালে ওই যুবকরা বিভিন্নভাবে শিশিরকে উত্ত্যক্ত করছিলেন।

সাকিব আসলে সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি তাকে জানান শিশির। পরে ওই বখাটেদের বিসিবির অফিসে নিয়ে যান কর্মকর্তারা। স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার অপরাধে সেখানে ওই যুবকদের গায়ে হাত তোলেন সাকিব। পরে অবশ্য বিসিবির সিইও নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি মিমাংসা করেন।

কিন্তু নিয়মানুযায়ী খেলা চলার সময় কোনো ক্রিকেটার ম্যানেজম্যান্টের অনুমতি না নিয়ে ড্রেসিং রুম ত্যাগ করতে পারেন না। সে অনুযায়ী বিসিবি প্রণীত কোড অব কন্ডাক্ট বা আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে শাস্তির মুখোমুখি হচ্ছেন সাকিব।






মন্তব্য চালু নেই