মেইন ম্যেনু

‘সমুদ্র সম্পদ আহরণের উদ্যোগ নেওয়া হবে’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘সমুদ্র সম্পদ আহরণের উদ্যোগ নেব আমরা। গভীর সমুদ্র থেকে গ্যাস, তেল উত্তোলনের উদ্যোগ নেওয়া হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণের ক্ষেত্রে আমাদের বিদেশিদের ওপর নির্ভর না করে নিজেদের উদ্যোগ নিতে হবে। সেই লক্ষ্যে শক্তি সঞ্চয় করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।’

শনিবার হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ড সম্প্রসারণ প্রকল্পের উদ্বোধনের পর দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন। এদিন দুপুর সাড়ে ১২টায় প্রকল্পটির উদ্বোধন করা হয়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা মিয়ানমার ও ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নির্ধারণ করেছি। উভয়ক্ষেত্রেই আমাদের সমুদ্র জয় হয়েছে। এখন আমাদের কাজ হবে নিজেদের সীমানায় প্রাকৃতিক সম্পদের খোঁজ ও আহরণ করা।’

রাষ্ট্রীয় গ্যাস-তেল অনুসন্ধান ও উত্তোলন কোম্পানিকে (বাপেক্স) আরো শক্তিশালী করা হবে বলে এ সময় জানান তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকারের সময়ে দেশে গ্যাস, বিদ্যুতের সরবরাহ বেড়েছে। মূল্যস্ফীতি ৬.২ ভাগে নেমে এসেছে। আমরা স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। এগুলো বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। আমরা দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য কাজ করছি। ক্রিকেট খেলায়ও আমরা জিতছি। পরপর চারটি ওয়ানডে ম্যাচে জিতেছি। আমরা পারি। আসলে আত্মবিশ্বাসই সবচেয়ে বড় জিনিস। আত্মবিশ্বাস থাকলে যে কোন জিনিস করা সম্ভব।’






মন্তব্য চালু নেই