মেইন ম্যেনু

শ্রমিক ইস্যুতে জিরো টলারেন্স : তোফায়েল

আসন্ন রোজার ঈদ উপলক্ষে পোশাক শ্রমিকসহ অন্যান্য খাতে শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতিতে থাকবে সরকার। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হান্নার সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘তাজরীন ফ্যাশনের শ্রমিকরা বিক্ষোভ করছে। তাদের গত কয়েক মাসের বেতন দেয়া হয়নি বলে আমরা খবর পেয়েছি। আমি বিজিএমই ও বিকেএমই নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। তারা আমাকে জানিয়েছে, তাজরীনের মালিক জেলহাজতে। যে কারণে শ্রমিকদের বেতন দিতে সমস্যা হচ্ছে।’ এছাড়া অন্য কোনো কারখানায় শ্রমিক অসন্তোষ নেই বলে দাবি করেন মন্ত্রী।

বিজিএমইএ পক্ষ থেকে তাজরীন ফ্যাশনের মালিকের জামিন দিতে মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে এমন প্রশ্ন কিছুটা এড়িয়ে যান মন্ত্রী। তবে শ্রমিক সমস্যা সমাধানে ঈদের আগেই সব ব্যবস্থা নেয়া হবে, কোনো শ্রমিক বেতন বোনাস ছাড়া বাড়ি ফিরবে না বলে আশ্বাস দেন তোফায়েল আহমেদ।

বৈঠক সম্পর্কে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আজকের বৈঠক আমাদের পোশাক খাত নিয়ে হয়েছে। এছাড়া অন্য বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। বেশিগুরুত্ব পেয়েছে শ্রমিক নিরাপত্তা, কারখানা মান ও শ্রমিক ইউনিয়ন বিষয়। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের বলেছে। আমাদের এ সংক্রান্ত আইন রয়েছে। সর্বশেষ যুক্তরাষ্ট্র আমাদের বন্দর শ্রমিক ইউনিয়ন (ইপিজেড) নিয়ে আপত্তি করেছে। গত মন্ত্রিপরিষদ সভায় তা অনুমোদন হয়েছে। সব মিলিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্র সন্তুষ্ট রয়েছে।’

এসময় ইইউ রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হান্না বলেন, ‘বাংলাদেশ রানাপ্লাজা ও তাজরীন ফ্যাশন থেকে অনেক শিক্ষা নিয়েছে। এ ঘটনা বাংলাদেশের কারখানার শ্রমমান উন্নয়ন এবং কারখানার পরিবেশের পরিবর্তন হয়েছে। এনিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সন্তুষ্ট। গত তিন বছেরে বাংলাদেশ ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে মোট রপ্তানির ৫৭% তৈরি পেশাক রপ্তানি করেছে। যা ভবিষ্যতে অব্যহত থাকবে। এর জন্য বাংলাদেশের শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠা আইন বাস্তবায়ন দরকার।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই