মেইন ম্যেনু

শিল্প, বিনিয়োগ ও জনকল্যাণমুখি বাজেট : বিজিএমইএ

২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে শিল্প, বিনিয়োগ বান্ধব ও জনকল্যাণমুখি হিসেবে মূল্যায়ন করছে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী সংসদে বাজেট পেশের পর গণমাধ্যমে এ প্রতিক্রিয়া দিয়েছে বিজিএমইএ।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত বাজেটে শিল্পকে বিশেষ করে রপ্তানিমুখি তৈরি পোশাক শিল্পকে অগ্রাধিকার দিয়ে যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহনের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এটি শিল্পে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

এছাড়া প্রস্তাবিত বাজেটে রপ্তানিখাতকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে নগদ সহায়তার ওপর উৎসে কর ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। পোশাক শিল্পে অগ্রিম আয়কর ০.৮০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ০.৩০ শতাংশ করা, শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ৫০ কোটি টাকার তহবিল বরাদ্দ, শিল্প বিকেন্দ্রীকরণের জন্য সহায়ক নীতি ঘোষণা, রপ্তানিমুখি পোশাক শিল্পে প্রি-ফেব্রিকেটেড বিল্ডিংয়ের কাঁচামাল ও অগ্নি-নির্বাপক যন্ত্রপাতির আমদানির শুল্ক প্রত্যাহারকরণ, পোশাক শিল্পের সহায়ক সেবার ওপর থেকে মূসক অব্যাহতি প্রদান এবং অনগ্রসর এলাকায় শিল্প স্থাপন করা হলে কর-রেয়াত সুবিধা প্রদানেরও প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

প্রস্তাবিত বাজেটে করপোরেট করের হার ৩৭.৫ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ৩৫ শতাংশ ধার্য করা, সামাজিক দায়বদ্ধতা (সিএসআর) ব্যয়ের পরিধি ৮ কোটি টাকা থেকে ১২ কোটি টাকা বৃদ্ধি করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এতে করে সিএসআর কার্যক্রমে গতিশীলতা আসবে বলে বিজিএমইএ গভীরভাবে আশাবাদী।

বিজিএমইএ মনে করে, ২০২১ সালের রূপকল্প বাস্তবায়ন এবং ২০২৫ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে হলে শিল্পায়নকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে। আর তারই প্রতিফলন ঘটেছে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে।






মন্তব্য চালু নেই