মেইন ম্যেনু

রোজ সকালেই দেখাতে চান দারুণ আকর্ষণীয়? মেনে চলুন এই ১৬টি টিপস!

ঘুমাতে ভালবাসেনা এমন মানুষ খুব কমই আছে। আর ঘুম হল আমাদের জীবনের অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। ঠিকমত ঘুম না হলে যেমন শরীর ও মনমেজাজ খারাপ থাকে, তেমনি আপনাকে দেখতেও খুব এলোমেলো লাগে। ঘুম থেকে ওঠার পর সবারই চেহারাটা ভোঁতা দেখায়, চোখ-মুখ ফুলে থাকে। আর তাই সকাল সকাল কোথাও যেতে হলে বেশ বিব্রত হন অনেকেই। ঘুম থেকে ওঠার পরও দেখা চান দারুণ আকর্ষণীয় ও প্রাণবন্ত? তাহলে আসুন জেনে নেই ১৬ টি উপায়, যেগুলো প্রয়োগ করলে আপনাকে সবসময় দেখাবে দারুণ সতেজ ও সুন্দর। হ্যাঁ, ঘুম থেকে ওঠার পরেও!

১। ঘুমাতে যাওয়ার আগে গোসল করে নিন। দেখবেন আপনার সারাদিনের ক্লান্ত শরীরে খুব আরাম উপভোগ করছেন এবং পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠার পর আপনাকে দেখাবে দারুণ ফ্রেশ!

২। সপ্তাহে একদিন অবশ্যই আপনার চুলের ধরন অনুযায়ী উপযুক্ত একটি হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন অথবা তেল সামান্য গরম করে ম্যাসাজ করুন চুলে।

এবং পরদিন সকালে ভালো মতো শ্যাম্পু করে ফেলুন। দেখবেন চুল থাকবে সুন্দর ঝর ঝরে এবং আকর্ষণীয় গোটা সপ্তাহ।

৩। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে চুলকে গুছিয়ে বেঁধে না ফেললে সকালে উঠে দেখবেন চুলের যা তা অবস্থা। তবে যেনতেনভাবে বাঁধলেও হবে না। যত্ন করে বাঁধুন। আপনার চুলকে ২ ভাগ করুন এবং হালকা ভাবে ২ টা বেনি করে ফেলুন। যাদের একদমি ছোট চুল বেনি করা সম্ভব না তারা ঘুমাতে যাওয়ার আগে চুল ভালো করে আঁচড়ে নিন।

৪। আজকাল মাথায় তেল দেয়ার এতো সময় কই! আর সময় থাকলেও অলসতার কারণে আমরা অনেকেই মাথায় তেল দেইনা। তেল যদি দিতে একদমই ভালো না লাগে তাহলে আপনি হাতে খুব সামান্য পরিমান তেল নিয়ে তাতে অনেকটা পানি মেশান। ঘুমাতে যাওয়ার আগে চুলে হালকা ভাবে লাগিয়ে নিন। ও ভালো করে আঁচড়ে নিন। পানির কারণে অল্প তেলই পুরো চুলে ছড়িয়ে পড়বে। সকালে দেখবেন চুলগুলোকে সতেজ লাগছে।


৫। হাতের কাছেই আপনার মেকআপ রিমুভার রাখুন, কারণ বাইরে থেকে আসার পর যদি আপনি খুব ক্লান্ত থাকেন শাওয়ার নিতে ইচ্ছে না করে তখন শুধু মেকআপ রিমুভার ব্যবহার করে ঘুমিয়ে পরুন। ছোট্ট এই কাজে পরদিন সকালেও আপনি থাকবে দারুণ আকর্ষণীয়।

৬। একটি ভালো ব্র্যান্ড এর ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন আপনার মুখ পরিষ্কার করার জন্য।

৭। প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে আপনার মুখে ভালো কোন লোশন নিয়ে হালকা ভাবে ম্যাসাজ করে নিন। তারপর তুলো দিয়ে মুছে ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে ভালো একটা ক্রিম লাগিয়ে নিন। এতে আপনার মুখের ত্বক পরিষ্কার হবে ও ব্লাড সার্কুলেশন বাড়বে। সকালে উঠে পাবেন ঝলমলে ত্বক।

৮। সপ্তাহে ২ দিন ভালো কোন ফেসপ্যাক ব্যাবহার করুন যা আপনার ত্বকের সাথে যায়। আপনার ত্বক যদি শুষ্ক হয়ে থাকে তাহলে মশ্চারাইজার যুক্ত ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন। আর যদি তৈলাক্ত ত্বক হয়ে থাকে তাহলে ওয়েল ফ্রি ফেসপ্যাক ব্যবহার করুন।

৯। প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে অবশ্যই আপনার বিছানা ভালো মতো ঝেড়ে পরিষ্কার করে নিন এবং বিছানা ঘুছিয়ে পরিপাটি রাখুন দেখবেন ঘুমাতেও অনেক শান্তি লাগবে। ময়লা বিছানায় মুখের ত্বকের মারাত্মক ক্ষতি হয়।
১০। আপনার বিছানার পাশে ছোট একটি বোতলে নারিকেল তেল বা ভালো বডি লোশন রাখুন এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে আপনার হাতে-পায়ে হালকা ভাবে ম্যাসাজ করে নিন। সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখবেন আপনার হাত ও পায়ের ত্বক অনেক বেশী নরম ও কোমল।

১১। সুন্দর চোখ কে না ভালবাসে? আর চোখের পাপড়িগুলো যদি থাকে ঘন কালো, সেই চোখের সৌন্দর্যই আলাদা। আপনার চোখের পাপড়ি গুলো আরও বেশি ঘন কালো করতে প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ব্যবহার করুন ক্যাস্টর ওয়েল।

১২। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে একটি ভালো ব্র্যান্ড এর পেট্রলিয়াম জেলি অথবা ভালো লিপ বাম ব্যাবহার করুন যা আপনার ঠোঁটকে রাখবে সবসময় নরম।

১৩। প্রতিদিন সুন্দর পা চাই? তাহলে ভালো মশ্চারাইজিং লোশন ব্যবহার করুন পায়ে এবং মোজা পরে ঘুমাতে যান।

১৪। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে সবসময় আন্ডার আই ক্রিম ব্যবহার করুন যা আপনার চোখের নিচেকাল দাগ জমতে দেবে না।

১৫। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত ব্রাশ করতে কিন্তু ভুলবেননা, যদি এই কাজটি আপনি আপনার অভ্যাসে পরিনত করতে পারেন উপকারি আপনি নিজেই হবেন। দাঁত থাকবে সুন্দর ও স্বাস্থ্য উজ্জ্বল।

১৬। প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাওয়ার অন্তত আধঘণ্টা আগে ১৫ থেকে ২০ মিনিট একটু ফ্রিহ্যান্ড এক্সেরসাইজ করে নিন দেখবেন। গোসলটা এরপর করুন। আপনার ঘুমও খুব ভালো হবে এবং সকালে ঘুম থেকে উঠার পর আপনি থাকবেন সব সময়ের মতই ফ্রেশ। যে ঘাম ঝরবে তাতে ত্বকের সব ময়লাও বেরিয়ে যাবে।






মন্তব্য চালু নেই