মেইন ম্যেনু

রেলমন্ত্রী গাইলেন, সবাইতো সুখী হতে চায়…

জীবনের পড়ন্ত বেলায় ৬৭ বছর বয়সে বিয়ের ঘোষণা দিয়েছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। বুধবার তিনি সংসদে এসেছিলেন লাল টুকটুকে পাঞ্জাবী পরে।

সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে সংসদ সদস্যদের প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। এসময় বেশিরভাগ সদস্য তাকে অভিনন্দন জানান। গানের সুরে তাদের অভিন্দনের জবাব দেন মন্ত্রী।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নকর্তা সরকারি ও স্বতন্ত্র দলীয় সংসদ সদস্যরা বিলম্ব হলেও বিয়ের ঘোষণা দেয়ায় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হককে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, রেলমন্ত্রীর চার্মিং চার্মিং ভাব। উনি এখন চার্মিং মুডে চলছেন।’ এ সময় সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা টেবিল চাপড়ে মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানালে মুজিবুল হক গানের সুরে বলেন, ‘সবাই তো সুখী হতে চায়…।’

এ সময় সবাই হাসিতে ফেটে পড়েন। সরকারি দলের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান তার নির্বাচনী এলাকায় চাষাড়া থেকে আদমজী পর্যন্ত ডবলগেজ রেলপথ স্থাপনের দাবি জানান। জবাব দিতে উঠে মন্ত্রী বলেন, ‘সত্যিই বলেছেন আমার চার্মিং চার্মিং ভাব। কিন্তু মনে রাখবেন- সবাইতো সুখী হতে চায়। আমিও চাই।

এরপর প্রশ্ন করতে গিয়ে সরকারি দলের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বলেন, বিলম্ব হলেও রেলমন্ত্রীর শুভবুদ্ধির উদয় হওয়ায় তাকে আমরা ধন্যবাদ জানাই। সেই সপ্তম সংসদ থেকে আমরা তাকে বিয়ে দেয়ার জন্য কতই না চেষ্টা করেছি। অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেও সক্ষম হইনি। তাকে আমরা অনেকদিন ধরে চিনি। কিন্তু এতো সুন্দর রঙের লাল টুকটুকে পাঞ্জাবী পরে আসতে কখনও দেখিনি। উনি একজন পোড় খাওয়া রাজনীতিবিদ। রাজনীতিতে তিনি সার্থক হয়েছেন, আশা করি নতুন জীবন সঙ্গীনি পেয়ে জীবন যুদ্ধেও সার্থক হবেন। আমরা সবাই তার জন্য দোয়া করি।

জবাব দিতে উঠে রেলমন্ত্রী হাসতে হাসতে বলেন, কোন ভাল কাজ একবারে না হওয়ার চেয়ে দেরীতে হওয়া ভাল।

স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম হিন্দীতে একটি উক্তি করে পুরো সংসদে হাসির খোরাক যোগান। রেলমন্ত্রীকে প্রশ্ন করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘লাল লাল হোটমে, মুজিব তেরা নাম হ্যায়’। এসময় রেলমন্ত্রী হেসে বলেন, ‘আমার ঠোঁট কিন্তু লাল নয়’






মন্তব্য চালু নেই