মেইন ম্যেনু

রেকর্ড গড়েই চ্যাম্পিয়ন হলো আবাহনী

রেকর্ড গড়ে জেবি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জিতল ঢাকা আবাহনী। শিরোপা নিশ্চিত হয়েছিল আগের ম্যাচেই। কিন্তু আজ শুক্রবার নিজেদের শেষ খেলায় রহমতগঞ্জকে ৩-১ গোলে হারিয়ে আবাহনী লিগ শেষ করল অপরাজিত থেকে। বিপিএলের নয়টি আসরে এটিই কোনও দলের প্রথম অপরাজিত শিরোপা।

খেলার ২২ মিনিটে রহমতগঞ্জকে এগিয়ে দেন কঙ্গোলিজ ফরোয়ার্ড সিয়ো জুনাপিয়ো। পাল্টা আক্রমণ থেকে ডান প্রান্ত দিয়ে আবাহনী ডিফেন্স ভেদ করে এগিয়ে যান মিডফিল্ডার আলাউদ্দিন, ভাসিয়ে দেন বাম পায়ের একটি মাপা ক্রস। বক্সের মাঝ থেকে কোনাকুনি হেডে আবাহনীর জালে বল জড়িয়ে দেন জুনাপিয়ো। প্রধমার্ধে ১-০ গোলে পিছিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় ঢাকা আবাহনী।

আবাহনীকে ম্যাচে ফেরান নাবিব নেওয়াজ জীবন। বক্সের মাঝ থেকে তার প্লেসিং পরাস্ত করে রহমতগঞ্জ গোলরক্ষক সামিউল ইসলাম মাসুমকে। ৫৯ মিনিটে ইংরেজ ফরোয়ার্ড জোনাথান ডেভিডের ক্রসে আলতো হেডে দ্বিতীয় গোল করেন ফরোয়ার্ড নাবিব নেওয়াজ জীবন। ইনজুরি টাইমে তৃতীয় গোলটি করেন জোনাথান ডেভিড।

২০০৭ সালে আবাহনী প্রথম বিপিএল চ্যাম্পিয়ন হয়। ২০ ম্যাচে একটি পরাজয় ছিল তাদের। ২০০৮-০৯ মৌসুমে দ্বিতীয় শিরোপার পথে ২০ ম্যাচে ছিল দুটি পরাজয়। ২০০৯-১০ মৌসুমে হ্যাটট্রিক শিরোপা অর্জনের সময় ২৪ ম্যাচে একটি হারের স্বাদ নেয় আকাশি নীল শিবির।

২০১০-১১ মৌসুমে বিপিএল শিরোপা জিতেছিল শেখ জামাল। ২২ ম্যাচের লিগে তারা হেরেছিল একটি ম্যাচ। ২০১২ সালে নিজেদের চতুর্থ শিরোপা জিতেছিল ঢাকা আবাহনী। ২০ ম্যাচের লিগে শিরোপা জয়ের পথে আবাহনী হেরে যায় এক ম্যাচ। ২০১২-১৩ মৌসুমে শেখ রাসেল শিরোপা জিতেছিল ১৬ ম্যাচের, লিগে হেরেছিল একটি ম্যাচ। ২০১৩-১৪ মৌসুমে শেখ জামাল জিতে নেয় তাদের দ্বিতীয় শিরোপা। তবে ২৭ ম্যাচের লিগে তারা অপরাজিত থাকেনি, হেরেছিল একটি ম্যাচ। ২০১৪-১৫ মৌসুমেও শিরোপা ছিল শেখ জামালের ঘরে। তবে ২০ ম্যাচের লিগে তারা নিয়েছিল একটি পরাজয়ের স্বাদ।

অবশেষে ঢাকা আবাহনী গড়ল ইতিহাস। বিপিএলের নবম আসরে এসে তারাই হলো প্রথম অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন।






মন্তব্য চালু নেই