মেইন ম্যেনু

তিস্তা ইস্যু নিয়ে সুষমাকে শেখ হাসিনা

‘মমতাকে একটু বোঝান’

তিস্তা নিয়ে মমতাকে বোঝানোর জন্য সুষমাকে আহবান জানিয়েছেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশে সফররত ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের হাত ধরে আকুল আবেদন জানলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি যেন তিস্তার পানিবণ্টন ও স্থলসীমান্ত চুক্তি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজি করান। শুক্রবার ভারতের অন্যতম বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার এ কথা জানায়।

‘তিস্তা নিয়ে মমতাকে বোঝান, আর্জি হাসিনার’ শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে আনন্দবাজার জানায়,বৃহস্পতিবার সুষমা স্বরাজের সঙ্গে এক অন্তরঙ্গ বৈঠকে এই আবেদন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী হাসিনা।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভারতের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সাদরে অভ্যর্থনা জানান হাসিনা। এসময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির চিঠিটি হাসিনার হাতে তুলে দেন সুষমা । এই চিঠিতে হাসিনাকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মোদি। চিঠি পড়ার পর হাসিনা বলেন, তিনি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দিল্লি সফরে যাওয়ার চেষ্টা করবেন।

বৈঠকে সুষমা বলেন, উত্তর-পূর্বের জঙ্গি সমস্যা নিয়ন্ত্রণে ভারতকে যে ভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ, এই আমলেও তা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশাবাদী। হাসিনা বলেন, শুষ্ক মৌসুমে পানির সঙ্কটে বাংলাদেশের চাষবাস ভীষণ ভাবে মার খাচ্ছে। এই জন্যই বাংলাদেশের মানুষ তিস্তা চুক্তিটির দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। জবাবে সুষমা বলেন, তিস্তা ও স্থলসীমা চুক্তি নিয়ে ঐকমত্য তৈরির প্রক্রিয়া শুরু করেছে নতুন সরকার। এ জন্য একটু সময় চান তাঁরা।

মুখোমুখি আলোচনার পরে সুষমা বিদায় চাইলে হাত ধরে তাঁকে বাইরে নিয়ে আসেন হাসিনা। আলিঙ্গন করে বলেন, ‘জানি আপনারা আন্তরিক ভাবে চেষ্টা করছেন। তবু বলব, মমতাকে একটু বোঝান। তিনি যেন আপত্তি তুলে নেন।’ হেসে ঘাড় নাড়েন সুষমা।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল হাসান মাহমুদ আলির সঙ্গে প্রথমে প্রতিনিধি পর্যায়ের ও পরে মুখোমুখি বৈঠকে বসেন সুষমা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান বৈঠকের পরে জানান, দু’দেশের মানুষের মধ্যে সম্পর্ক ও আদানপ্রদান আরও সহজ করার বিষয়ে তারা সম্মত হয়েছে। এ জন্য ভিসানীতি সহজ করার ঘোষণা করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এখন থেকে ৬৫ বছরের বেশি ও ১৩ বছরের কমবয়সী বাংলাদেশি নাগরিকদের সহজেই মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসা দেবে ভারত। বাংলাদেশও তাদের ভূখণ্ডের ওপর দিয়ে ১০ হাজার টন খাদ্যশস্য ত্রিপুরায় পাঠানোর ছাড়পত্র দিচ্ছে ভারতকে। আলি বলেন, বাংলাদেশে সাত খুনের আসামি কলকাতায় ধরা পড়া নুর হোসেনকে ফেরত দেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছেন সুষমা। সীমান্তে পাহারা আরও জোরদার করা ও গুলিবর্ষণের ঘটনা বন্ধেও সহমত হয়েছে দুই দেশ।

তবে ভারত থেকে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ফেরানো নিয়ে বৈঠকে কোনও আলোচনা হয়নি।

শুক্রবার বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন সুষমা। পরে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ও বিরোধী নেত্রী রওশন এরশাদের সঙ্গে আলোচনা সেরে বিকেলেই দিল্লির বিমানে ওঠার কথা রয়েছে তার।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই