মেইন ম্যেনু

মধ্য বয়সেও থাকুন সুস্থ

আমাদের দেশের নারীরা বরাবরই নিজের শরীরের প্রতি উদাসীন। পরিবারের সব কাজ নিজ হাতে সামলানোই তার কাছে কৃতিত্বের। কিন্তু অযত্ন আর অবহেলায় মধ্য বয়সে পা দিতে না দিতেই শরীরে বাসা বাধে নানা রোগ। হতে থাকে হাড়ের ভঙ্গুরতা, ডায়াবেটিস, স্তন ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপের মতো ইত্যাদি রোগ। তাই জেনে নেয়া যাক, মধ্য বয়সে এসেও এসব রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়।
যেসব নারী যথেষ্ট পরিমাণে ভিটামিন ডি গ্রহণ করেন না, তাদের হাড়ের ভঙ্গুরতার মতো রোগ দেখা দেয়। এ সমস্যা থেকে বাঁচতে খাদ্য তালিকায় নিয়মিত রাখতে পারেন দুধ, দই, ঘরে তৈরি পনির। এসব খাবার শরীরের প্রয়োজনীয় ভিটামিন ডি এর যোগান দেবে।
একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারীর প্রতিদিন ৪০০ মাইক্রোগ্রাম ফলিক অ্যাসিড গ্রহণ করা উচিত। হৃদযন্ত্র রক্ষাকারী ও নতুন টিস্যু গঠনে সহায়তাকারী হিসেবে ফলিক অ্যাসিডের দারুণ ভূমিকা রয়েছে। ফলিক অ্যাসিডের অভাবে রক্তশূন্যতা, দুর্বলতা, মাথাব্যথা এবং হৃদরোগ হতে পারে। সবুজ শাকসবজি, লেবুজাতীয় ফল, বেরী, বাদাম এবং অলিভ অয়েলে ফলিক অ্যাসিড থাকে।খাবার
হাড়ের নতুন কোষ তৈরি করতে ক্যালসিয়াম সহায়তা করে। নারীদের ঋতুস্রাব স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে গেলে এই ক্ষমতা কমে যায়, তাই ক্যালসিয়াম গ্রহণ খুবই জরুরি। দুগ্ধজাত খাবারের পাশাপাশি সয়া এবং চালের তৈরি পানীয়, ব্রোকলি, বাঁধাকপি, সামুদ্রিক মাছে প্রচুর ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়।
বয়স বেড়ে গেলে ভিটামিন বি১২ এর অভাব নারীদের অনেক রোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যেমন- অবসাদ, ওজন কমে যাওয়া, দুর্বল স্মৃতিশক্তি এবং বিষন্নতা ইত্যাদি রোগ। মাছ, মাংস, হাঁসমুরগি, ডিম এবং প্রক্রিয়াজাত সিরিয়ালে ভিটামিন বি১২ পাওয়া যায়।






মন্তব্য চালু নেই