মেইন ম্যেনু

ব্র্যান্ড নিয়ে বিপদে রোনালদো

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ব্র্যান্ডের নাম নিয়ে বিভ্রাট! রিয়াল মাদ্রিদের সুপারস্টারের নামের দুই আদ্যেক্ষর এবং জার্সি নাম্বার দিয়ে বানানো ‘সিআর সেভেন’ নামে একটি ফ্যাশন হাউস রয়েছে। বিখ্যাত ফুটবলারের নামে ব্র্যান্ড হাউস থাকায় বাণিজ্যও রমরমা তাদের। কিন্তু যখনই আমেরিকার বাজারে ঢুকতে গেলো সিআর সেভেন ব্র্যান্ড, তখনই বিপাকে পড়ে গেলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

রোনালদোর সিআর সেভেন শার্ট, প্যান্ট, জুতা, মোজাসহ বিভিন্ন বিলাসদ্রব্য, এমনকি অন্তর্বাসও বিক্রি করছে। তবে ‘সিআর সেভেন’ নামে আগে থেকেই অন্য একটি কোম্পানি রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। তাদের ব্যবসা আমেরিকা জুড়ে। তার ট্রেডমার্কও নেওয়া রয়েছে তাদের। রোনালদোর কোম্পানি যদি আমেরিকায় পা রাখে, তাহলে তাদের ব্যবসা মার খাবে। আর তাই রোনালদোর কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা করলেন ক্রিস্টোফার রেঞ্জি।

যদিও মামলা করে আরও বিপাকে পড়েছেন রেঞ্জি। রোনালদোর দেখাই যে পাচ্ছেন না তিনি! গত নভেম্বরে রোনালদোর কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন রেঞ্জি। তারপর থেকে এক মাস পেরিয়ে গেলেও রিয়াল তারকাকে ছুঁতেই পারেনি আদালত। এমনকি, আইনী কাগজও পৌঁছানো যায়নি সিআর সেভেনের হাতে।

কারণ, ক্লাবের হয়ে খেলার জন্য ভীষণ ব্যস্ত রোনালদো। আজ মাদ্রিদ তো, কাল বার্সেলোনায়, পরশু লিভারপুলে আর এর পর মরক্কোয়। একবার পর্তুগালে এবং আরেকবার মাদ্রিদের সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর ঠিকানায় চিঠি পাঠিয়েও কোন লাভ হয়নি।

২৬ মার্চ পর্যন্ত আদালতও সময়ও নিয়েছে। যাতে রোনালদোর হাতে মামলার আইনী কাগজপত্র পৌঁছে দেওয়া যায়। রোনালদোর বাড়ি যেমন, তেমনই ক্লাব রিয়ালও- কেউই মামলার কাগজ নিতে রাজি হয়নি। রেঞ্জির আইনজীবী মিচেল ফেল্ডুন বলেছেন, ‘ব্যাপারটা নিয়ে একটা চাপানউতোর আছে। রোনালদোর কাছে কাগজপত্র পৌঁছে দেওয়া চেষ্টা করছে আদালত। ওর বাড়ি কিংবা ক্লাবে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে দ্রুত সমস্যা মেটানো যাবে।’






মন্তব্য চালু নেই