মেইন ম্যেনু

বিমসটেকের প্রধান কার্যালয় উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার সকাল ১১টায় দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাত দেশের আঞ্চলিক জোট বিমসটেকের স্থায়ী সচিবালয় উদ্বোধন করেন।

এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সমন্বিত পল্লী উন্নয়ন কেন্দ্রের (সিরডাপ) পর এই প্রথম আন্তর্জাতিক কোনো সংস্থার প্রধান কার্যালয় বাংলাদেশে হতে যাচ্ছে। বিমসটেকের স্থায়ী কার্যালয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নের গতিকে তরান্বিত করতে আঞ্চলিক জোটগুলোকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে চায়।

চলতি বছরের মার্চে মিয়ানমারে সদস্য দেশগুলোর শীর্ষ নেতাদের নিয়ে দুই দিনব্যাপী বিমসটেকের তৃতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় সম্মেলনে বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই সম্মেলনে বিমসটেকের স্থায়ী সচিবালয় ঢাকায় স্থাপনে সমাঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করা হয়। বাংলাদেশের পক্ষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সমাঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন।

দুই দিনব্যাপী বিমসটেকের তৃতীয় সম্মেলনে সদস্য দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা তিনটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন। চুক্তিগুলো হলো- ঢাকায় বিমসটেকের স্থায়ী সচিবালয় নির্মাণ, ভারতে সেন্টার ফর ওয়েদার অ্যান্ড ক্লাইমেট স্থাপন এবং ভুটানে কালচারাল ইন্ডাস্ট্রিজ কমিশন ও বিমসটেক কালচারাল ইন্ডাস্ট্রিজ অবজারভেটরি গঠন। বিমসটেক দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাতটি দেশ নিয়ে গঠিত একটি আঞ্চলিক জোট। এর সদস্যরা হলো বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, ভুটান ও নেপাল।

সচিবালয় উদ্বোধনের সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, বিসমটেকের মহাসচিব সুমিত নাকানডালা, ঢাকায় অবস্থিত বিভিন্ন দূতাবাসের রাষ্ট্রদূতসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ






মন্তব্য চালু নেই