মেইন ম্যেনু

বাসের ধাক্কায় ৩ শিক্ষার্থীসহ নিহত ৫

মাদারীপুর: শিবচরে বাসের ধাক্কায় তিন শিক্ষার্থীসহ পাঁচ জন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও আট জন। এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা সাতটি গাড়ি ভাঙচুর করে সড়ক অবরোধ করে রাখে।

শনিবার সকাল ১০টার দিকে শিবচর উপজেলার বন্দরখোলা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- দত্তপাড়া ইলিয়াছ আহমেদ চৌধুরী কলেজের শিক্ষার্থী ইমরান হোসেন (১৮), রেহানা আক্তার (১৭) ও হালিমা আক্তার (১৭) এবং শিবচরের বন্দরখোলা গ্রামের আরজু বেগম (৪৫) ও শিশু খালিদ হোসেন (২)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল ১০টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে কাওড়াকান্দির উদ্দেশে ছেড়ে আসা একটি লোকাল বাস শিবচরের বন্দরখোলা বাসস্ট্যান্ডে যাত্রী উঠা-নামা করছিল। এ সময় মাদারীপুর থেকে ঢাকাগামী সার্বিক পরিবহনের একটি বাস খুলনাগামী থেকে রূপসী পরিবহনকে ওভারটেক করতে যায়।

এক পর্যায়ে ওই পরিবহন দুটি বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে থাকা লোকাল বাসটিকে ধাক্কা দেয়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লোকাল বাসটি যাত্রীদের ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই রেহানা আক্তার ও ইমরান হোসেন নিহত হন। গুরুতর অবস্থায় আরও আট জনকে শিবচর রয়েল হাসপাতাল, শিবচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেয়ার পর হালিমা আক্তার নামে আরও এক শিক্ষার্থীসহ আরজু বেগম ও খালিদ হোসেন নামে একটি শিশু মারা যায়।

এদিকে, দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে উত্তেজিত জনতা প্রায় দুই ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এ সময় তারা সার্বিক ও রূপসী পরিবহনসহ সাতটি পরিবহন ভাঙচুর করে। এতে উভয় সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে হাইওয়ে ও শিবচর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে এলাকাবাসীর ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। প্রায় দুই ঘণ্টা পর পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আসে।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মো. শাহজাহান মিয়া জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থলে দুই জন ও হাসাপতালে নেয়ার পর তিন জনসহ পাঁচ জনের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে।

তিনি জানান, এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর ও সড়ক অবরোধ করে। তবে পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।



« (পূর্বের সংবাদ)
(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই