মেইন ম্যেনু

বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থায় সংস্কার চান মজেনা

​বাংলাদেশে প্রচলিত বিচার পদ্ধতি সংস্কারের পক্ষে মত দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজেনা। তিনি বলেছেন,‘অভিযুক্তের স্বীকারোক্তির ওপর নির্ভরশীল’ বিচার ব্যবস্থার সংস্কার না হলে বিচার ব্যবস্থার ওপর জনগণের আস্থায় চিড় ধরতে পারে।

বুধবার রাজধানীর রাজারবাগে ডিটেকটিভ ট্রেইনিং স্কুলে এক সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত।

মজেনা বলেন, “বর্তমান ব্যবস্থাই রিমান্ডে নির্যাতনের সুযোগ করে দিচ্ছে, কেননা সন্দেহভাজনের স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধিরা অনেক বেশি বল প্রয়োগের উৎসাহ পাচ্ছেন। এরপর আর বিচারকের কিছু করার থাকে না।”

আর এভাবে বিচার ব্যবস্থার ওপর সাধারণ মানুষের আস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মজেনা আলামত সংগ্রহ, এর প্রক্রিয়াকরণ এবং আদালতের সামনে তা বিশ্বাসযোগ্যভাবে উপস্থাপনের ওপর জোর দেন, যাতে কেউ মিথ্যা অভিযোগে শাস্তি না পায় এবং প্রকৃত অপরাধীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায়।

সেমিনারে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক হাসান মাহামুদ খন্দকার এবং পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) প্রধান মোখলেসুর রহমানও অংশ নেন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত বলেন, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় নাগরিকদের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার দায়িত্ব বহন করে রাষ্ট্র। আর এটি যথেষ্ট কঠিন কাজ, কেননা রাষ্ট্রকে ভুক্তভোগি, অপরাধী এবং পুরো সমাজের জন্য ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হয়।






মন্তব্য চালু নেই