মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীকে মহিউদ্দিনের জরুরি চিঠি

সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে তেলবাহী জাহাজ দুর্ঘটনায় চট্টগ্রাম বন্দরের বর্জ্য অপসারণকারী দুটি অত্যাধুনিক জাহাজ না পাঠানোর কারণ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। একই সঙ্গে ‘কাণ্ডারি-১০’ জাহাজটিকে সেখানে পাঠানোর পর কেন অলস বসিয়ে রাখা হয়েছে তার কারণ উদঘাটনেরও দাবি জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো জরুরি এক ফ্যাক্স বার্তায় এ আহ্বান জানান মহিউদ্দিন। পাঠকদের জন্য সেই বার্তাটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,
আমার শ্রদ্ধা জানবেন। আশা করি ভাল আছেন। সম্প্রতি সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে তেলবাহী জাহাজ সাউদার্ন স্টার-৭ দুর্ঘটনার ফলে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবেলায় চট্টগ্রাম বন্দরে অত্যাধুনিক দুটি বর্জ্য অপসারণকারী জাহাজ (বে-ক্লিনার-১ ও বে-ক্লিনার-২) অলস বসে থাকার পরও অজ্ঞাত কারণে জাহাজ দুটি দুর্ঘটনা স্থলে ভাসমান তেল অপসারণের জন্য পাঠানো হয়নি। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। ক্রয়ের পর থেকে এ দুটি জাহাজের পেছনে কোন কাজ ছাড়াই এই পর্যন্ত অপারেশন কস্ট হিসেবে ব্যয় করা হয়েছে প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য যে, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের ভাষ্যমতে অত্যাধুনিক বিশেষায়িত এ দুটি জাহাজ প্রায় ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ক্রয় করা হয়েছে। দেশের নদী কিংবা সাগরের কোথাও বর্জ্য অথবা তেল ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা ঘটলে তা দ্রুত পরিবেশ সম্মতভাবে অপসারণের জন্য আধুনিক ব্যবস্থা এ জাহাজ দুটিতে রয়েছে। কিন্তু সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে দুর্ঘটনা কবলিত জাহাজের বিপুল পরিমাণ তেল ছড়িয়ে পড়ার পরও চট্টগ্রাম বন্দর থেকে জাহাজ দুটি পাঠানো হল না। ‘কাণ্ডারি-১০’ নামের যে জাহাজটি পাঠানো হয়েছে-সেটিও অকার্যকরভাবে সেখানে বসিয়ে রাখা হয়েছে। এসব বিষয়ে তদন্ত করে দেখা প্রয়োজন বলে মনে করি।

একদিকে পরিবেশের ভয়াবহ বিপর্যয়, অন্যদিকে এধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় কোটি-কোটি টাকা মূল্যের বর্জ্য অপসারণকারী জাহাজ দুটি অলস বসিয়ে রেখে এগুলোর অপারেশন কস্ট হিসেবে আরো কোটি-কোটি টাকা গচ্চা দেয়ার নেপথ্যে কি রহস্য আছে-তা বোধগম্য নয়। সুন্দরবনে সংঘটিত পরিস্থিতি দ্রুত মোকাবেলায় বর্জ্য অপসারণকারী জাহাজ দুটি অবিলম্বে ঘটনাস্থলে পাঠানোর ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে নির্দেশ দিয়ে জাতীয় সম্পদ সুন্দরবন এলাকাকে মারাত্মক ক্ষতির হাত থেকে রক্ষায় আপনার সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি। একই সাথে এধরনের জাতীয় বিপর্যয়ে যারা ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সময়মত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করেনি তাদের চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি।

আপনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

এ.বি.এম.মহিউদ্দিন চৌধুরী, সভাপতি, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই