মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীতে ৩ চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ৩ চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। জানা যায়, গতকাল সন্ধ্যায় বেগমগঞ্জ উপজেলায় আলীপুর সাকিনন্থ বাহার ম্যানশন নামক ভাড়াটিয়া বাসায় সন্ত্রাসী আবুল খায়ের প্রঃ সাগর (২৬), পিতা-মোঃ মোস্তফা, মোঃ ওমর ফারুক (৩০), পিতা-মোঃ হারুন মাঝি, কামাল হোসেন (৩৮), পিতা-মোঃ ইসমাইল হোসেন, এমাম (১৮), পিতা- মোঃ বুলু মিয়া, পিন্টু (১৮), পিতা- মোঃ আবুল  হোসেন, রাব্বি (১৮), পিতা-মোঃ আব্দুস ছেলাম সহ অজ্ঞাতনামা ৮/১০ জন চাঁদাবাজ মুজাহিদপুর শীলবাড়ির নয়ন চন্দ্র মজুমদারের স্ত্রী সীমা রানী দে এর নিকট ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে এবং সন্ত্রাসীরা হুমকি ধমক দিয়ে বলে যে, উক্ত বাসায় ভাড়া থাকতে হলে তাদেরকে ২ লাখ টাকা চাঁদা প্রদান করিতে হইবে। চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী আবুল খায়ের প্রঃ সাগর, মোঃ ওমর ফারুক, কামাল হোসেন জোর পূর্বক সীমা রানী দে ও তার স্বামী নয়ন চন্দ্র মজুমদার থেকে ১শ টাকার ২টি অলিখিত ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে নেয়। সন্ত্রাসীরা নয়ন চন্দ্র মজুমদারের গলায় থাকা আট আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন যার মূল্য ১৮ হাজার টাকা ও ঘরে থাকা নগদ ৩০ হাজার টাকা নিয়া যায়। এ ব্যাপারে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, সীমা রানী দে একজন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মহিলা হয়। বর্তমানে বাহার ম্যানশন নামক ভাড়া বাসায় থাকে। তার স্বামী গ্লোব সপ্ট ড্রিংক্স কোম্পানীতে ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে কর্মরত আছে। আবুল খায়ের প্রঃ সাগর, মোঃ ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, এমাম, পিন্টু, রাব্বি এক শ্রেণীর চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস, মাস্তান, লাটিয়াল ও অপহরণকারীর প্রকৃতির লোক হয়। গত ১৮ ডিসেম্বর সকালে উক্ত সন্ত্রাসীরা তার ভাড়াটিয়া বাসায় গিয়া তাকে ও তার স্বামী কে বলে, উক্ত বাসায় থাকিতে হইলে তাদেরকে নগদ ২ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হইবে এবং উক্ত টাকা ২০ ডিসেম্বর দুপুরের মধ্যে তাদেরকে দিতে হবে। উক্ত সন্ত্রাসীগণ ও তাহাদের সহযোগী অজ্ঞাতনামা ৮/১০ জন সন্ত্রাসী চাঁদাবাজ সীমা রানী দে এর বাসায় প্রবেশ করিয়া তাদের  দাবীকৃত ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। তারা চাঁদার টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে সন্ত্রাসীরা সীমা ও তার স্বামীকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দসহ হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি ভাবে মারধর করে এবং তাদের নিকট থেকে ৮ আনা ওজনের স্বর্ণের চেইন, ০২টি স্যাম্পনি মোবাইল সেট ও  নগদ ৩০ হাজার টাকা নিয়ে যায় এবং চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা সীমা রানী দে এর শ্লীলতাহানি ঘটায় এবং অলিখিত ১০০ টাকার ২টি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। পরে সীমা রানী দে পুলিশ সুপার, নোয়াখালী বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করে ২১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ডিবি পুলিশের এস.আই এসআই রবিউল ইসলাম চাঁদাবাজ আবুল খায়ের প্রঃ সাগর, মোঃ ওমর ফারুক, কামাল হোসেন গ্রেপ্তার করে ১শ টাকার ২টি অলিখিত ষ্ট্যাম্প, ২টি মোবাইল সেট, বাসার চাবি উদ্ধার করে। ডিবির ওসি নবীর হোসেন জানায়, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজের কোন প্রকার ছাড় নেই। তারই প্রেক্ষিতে আবুল খায়ের প্রঃ সাগর, মোঃ ওমর ফারুক, কামাল হোসেন কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই