মেইন ম্যেনু

নবাবগঞ্জের ইউএনও’কে মারধর

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ্য প্রহরী নিয়োগকে কেন্দ্র করে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) বেদম মারধর করেছে নিয়োগ বঞ্চিত ও দুস্কৃতিকারীরা।

বুধবার দুপুরে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত ইউএনও সৈয়দ ফরহাদ হোসেনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও সংশ্লিষ্টরা জানায়, ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মাসে নবাবগঞ্জ উপজেলার ৩৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ্য প্রহরী কাম পিয়ন পদে নিয়োগ দেওয়া হয়। কাঙ্খিত প্রার্থীদের নিয়োগ না হওয়ায় শুরু থেকেই এই নিয়োগের বিরোধিতা করে আসছিলো সরকার দলীয় লোকেরা।

বুধবার দুপুরে ওই ৩৯ জন নৈশ্যপ্রহরীর বেতন বিল উপজেলা ট্রেজারি অফিসে জমা দেওয়া হলে নিয়োগ বঞ্চিতরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তারা নবাবগঞ্জ ইউএনও কার্যালয়ের কলাপসিবল গেট ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় তারা ইউএনও অফিসে প্রবেশ করে ইউএনও’র কক্ষসহ তিনটি অফিসকক্ষ ভাঙচুর ও তছনছ করে। অফিস কক্ষে ইউএনও সৈয়দ ফরহাদ হোসেনকে বেদম মারধর করে তারা। এতে গুরুতর আহত হন তিনি। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার আরো অবনতি হলে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এ ঘটনায় নবাবগঞ্জ সদরে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।






মন্তব্য চালু নেই