মেইন ম্যেনু

ধর্ষিতার ইজ্জতের মূল্য মাতবরদের পকেটে

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার গোতামারী ছিটমহলে গ্রাম্য সালিশে এক তরুণীর ইজ্জতের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৭ হাজার টাকা। তবে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী নির্ধারিত অর্থ পাননি। স্থানীয় মাতবররা জরিমানার ওই টাকা রাতের আধারেই ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন।
শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে গোপনে গোতামারী ছিটমহলের মাতবর আবু ও তার সহযোগিরা ধর্ষক হোসেন ওই টাকা নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেন।
এর আগে, ধর্ষনের অভিযোগে গত ২ অক্টোবর লালমনিরহাট আদালতে মামলা করার পর গ্রাম্য সালিশে ধর্ষক হোসেন আলীকে ২৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এ ব্যাপারে শনিবার ধর্ষিতার বড় ভাই জানান, শুক্রবার রাতে গ্রামের লোকজনকে নিয়ে আবু ও তার সহযোগিরা সালিশের মাধ্যমে ২৭ হাজার টাকা জরিমানা করেন। কিন্তু জরিমানার টাকা আমাদের হাতে না দিয়ে রাতেই তারা নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নেন।
এ ব্যাপারে মাতবর আবু মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি।
লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার (এসপি) টি এম মুজাহিদুল ইসলাম জানান, এ ধরনের কোনো ঘটনা তার জানা নেই।






মন্তব্য চালু নেই