মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীর কিছু খবর :

দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা

দক্ষিণ আফ্রিকায় চাঁদা না দেওয়ায় ডালিম হোসেন (৩৫) নামের এক বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা সন্ত্রাসীরা। রোববার (২৮ ডিসেম্বর) ভোর বাংলাদেশ সময়ে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত ডালিম হোসেন নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা ইউনিয়নের চনগাঁও গ্রামের মৃত লোকমান হোসেনের ছেলে। সেনাইমুড়ি উপজেলার বজরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দুই বছর আগে ডালিম পরিবারের স্বচ্ছলতার জন্য দণি আফ্রিকায় যান। সেখানে তিনি নিজ উদ্যোগে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান দেন। সম্প্রতি স্থানীয় কিছু সন্ত্রাসী তার কাছে চাঁদা দাবি করে। ডালিম চাঁদা না দেওয়ায় সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে রোববার ভোরে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে ডালিমকে লক্ষ্য করে গুলি করে। বুকে গুলিবিদ্ধ হয়ে সে  লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় বাঙ্গালীরা তাকে উদ্ধার করে হাসপতালে নিয়ে গেলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। এদিকে, ডালিমের মৃত্যুর খবরে তার বাড়ী ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

সেনবাগে বিএনপি ও শিবির নেতা আটক, সরকারি গাছ কেটে সড়ক অবরোধ
এম.এ. আয়াত উল্যা, নোয়াখালী থেকে : নাশকাত সৃষ্টির আশংকা ও সকল ধরনের সহিংসতা এড়াতে নোয়াখালীর সেনবাগ পৌর এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিএনপির এক এবং ছাত্র শিবিরের এক নেতাকে আটক করে পুলিশ। এঘটনার প্রতিবাদে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতা কর্মীরা সরকারি গাছ কেটে সড়ক অরোধ করে। রবিবার বেলা ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতরা হচ্ছেন, সেনবাগ পৌরসভা বিএনপির সাধারন সম্পাদক ফারুক বাবুল ও সেনবাগ কলেজ শাখা ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি আলাউদ্দিন আলো। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সকালে পুলিশ সেনবাগ বাজারে অভিযান চালিয়ে পৌরসভা বিএনপির সাধারন সম্পাদক ফারুক বাবুল ও সেনবাগ কলেজ শাখা ছাত্র শিবিরের সাবেক সভাপতি আলাউদ্দিন আলোকে আটক করে। পরে এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে বিএনপি, জামায়াত ও শিবিরের নেতা কর্মীরা উপজেলার সেনবাগ-সোনাইমুড়ী সড়কের বিভিন্ন স্থানে সড়কের পাশে থাকা বন বিভাগের কয়েকটি গাছ কেটে সড়ক অবরোধ করে। এসময় ওই সড়কে প্রায় আধা ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনস্থলে পৌঁছে গাছ গুলো সরিয়ে দিলে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়। সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমিনুল ইসলাম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, হরতালকে সামনে রেখে নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে তাদের আটক করা হয়েছে। বিএনপি জামায়াতের নেতা কর্মীরা তাদের আটককে কেন্দ্র করে সড়কের পাশের ৪/৫টি গাছ কেটে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে তারা পালিয়ে যায়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। গাছ কাটার ঘটনায় বন বিভাগের প থেকে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে ওসি জানান।

 

সেনবাগে ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি আটক
এম.এ. আয়াত উল্যা, নোয়াখালী থেকে : বিএনপি’র ডাকা সোমবারের সকাল-সন্ধ্যা হরতালকে কেন্দ্র করে নাশকতার অভিযোগে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ছাতারপাইয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি আবদুর রহমানকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে ছাতারপাইয়া বাজারে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত বিএনপি নেতা আবদুর রহমান ছাতারপাইয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমিনুল ইসলাম আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নোবিপ্রবির ভর্তি পরীা

 

মোবাইলের মাধ্যমে উত্তর সংগ্রহকালে পরীার্থী আটক
এম.এ. আয়াত উল্যা, নোয়াখালী থেকে : নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোবিপ্রবি) এর-ডি ইউনিটের (ব্যবসা প্রশাসন ও অর্থনীতি) ভর্তি পরীা চলাকালে মোবাইলের মাধ্যেমে উত্তর সংগ্রহকালে মো. ফাহমিদুল হক নামের এক পরীার্থীকে আটক করা হয়েছে। শনিবার বিকালে নোয়াখালী সরকারি কলেজ কেন্দ্রের ৩০২ নাম্বার কে এই ঘটনা ঘটে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত (রাত ৯টা) বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আলোচনায় বসেছেন বলে জানিয়েছেন সুধারাম থানা পুলিশ। নোবিপ্রবি সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক ভর্তি পরীার হলে মোবাইল ফোন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের-ডি ইউনিটের ভর্তি পরীা শুরু হওয়ার পর নোয়াখালী সরকারি কলেজ কেন্দ্রে কলেজের ব্যবসায় শিা ভবনের ৩০২ নাম্বার কে মো. ফাহমিদুল হক (রোল নং ৮০৮২৬) নামের পরীার্থী মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উত্তর সংগ্রহের চেষ্টা চালায়। এ সময় পরপর তার মোবাইলে তিনটি ম্যাসেজের মাধ্যমে উত্তর আসে। তখন ওই করে পরিদর্শক বিষয়টি দেখে পরীার্থীকে হাতেনাতে আটক করে। বিষয়টি কলেজ প্রশাসনকে অবহিত করার পর এনিয়ে ক্যাম্পাসে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে কলেজ প্রশাসনের মাধ্যমে ওই পরীার্থীকে সুধারাম থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। সুধারাম মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নিজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরীার্থী ফাহমিদুল হক বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য রাতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপ আলোচনায় বসেছেন। আলোচনা শেষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নোবিপ্রবি’র প্রক্টর ড. নেওয়াজ মো. বাহাদুর জানান, পরীার হলে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। ওই পরীার্থী মোবাইলে ম্যাসেজের মাধ্যমে উত্তর সংগ্রহ করার প্রমান মিলেছে। পরীার্থীর মোবইলটি পুলিশের কাছে জব্দ রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই