মেইন ম্যেনু

ছাত্রলীগের সম্পাদক হলেন হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি শফিকুল ইসলাম রাজভীকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক করায় নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রাজভীর নাম ঘোষণার করা হয়। তবে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলছে না কেউই।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২০১৫ সালের ২৭ এপ্রিল খুন হন বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আদম খাঁ। চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে খুন করেন বলে স্ত্রী পারুল বেগম ২০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় রাজভী, তার বাবা ও দুই ভাইকে আসামি করা হয়। এ ঘটনায় ওই বছরই আদালতে অভিযুক্ত ২০ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দেয় পুলিশ।

তবে এ ব্যাপারে শফিকুল ইসলাম রাজভী বলেন, আমাকে মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। ঘটনার সময় আমি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছিলাম। বিষয়টি এখন সামাজিক মিমাংসার পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক ফায়দা নিতেই প্রতিপক্ষের লোকজন এখন এ নিয়ে বলাবলি শুরু করেছে।

বিজয়নগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী আরশাদ জানান, আদালতে হত্যা মামলাটির চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। মামলায় কে কে জামিনে আছেন নথি না দেখে তা বলা সম্ভব নয়।

এর আগে সোমবার বিকেলে বিজয়নগর উপজেলার চম্পকনগর স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে মাহবুব হোসেনকে সভাপতি ও শফিকুল ইসলাম রাজভীকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা দেয়া হয়।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র. আ. ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরি। সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মাসুম বিল্লাহ। এতে সভাপতিত্ব করেন বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. ইলিয়াস।






মন্তব্য চালু নেই