মেইন ম্যেনু

গোলাম আযমের শাস্তি যথেষ্ট ছিল না

‘গোলাম আযমের শাস্তি যথেষ্ট ছিল না, কিন্তু ন্যায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়।

মঙ্গলবার ফেসবুকে নিজের পাতায় অন্যান্য প্রসঙ্গের পাশাপাশি তিনি এ মন্তব্য তুলে ধরেন।

সজিব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘আজ আমাদের আওয়ামী লীগ সরকার ও বাংলাদেশের জন্য ঘটনাবহুল দুই সপ্তাহের সফল পরিসমাপ্তি ঘটেছে। গত দুই সপ্তাহে আমাদের মাননীয় স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের সভা প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন, সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের জাতি জাতিসংঘের হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে এবং আজ আমরা ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়নের প্রশাসনিক কাউন্সিলের সদস্য হিসেবে পুণরায় নির্বাচিত হয়েছি। এসব সাফল্যের ঘটনায় আমরা সারা বিশ্বের দেশগুলির বহুলাংশের ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। এটি বিশ্বে আমাদের অবস্থান ও জনপ্রিয়তার একটি বিশাল স্বীকৃতি।’

‘এ স্বীকৃতি ও জনপ্রিয়তা আওয়ামী লীগ সরকার ও দলের সদস্য, সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও সরকারি কর্মকর্তাদের কঠোর পরিশ্রম ও সাফল্যের মাধ্যমে অর্জিত হয়েছে’ বলেও মন্তব্য করেন সজিব ওয়াজেদ জয়।

জয় আরো বলেন, ‘আজ বাংলাদেশ বিশ্ব সমাজের এক অতি সম্মানিত ও সদস্য হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে, এর মূল কারণ আওয়ামী লীগ সরকার ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার অর্জনসমূহ।’

গোলাম আযমের প্রসঙ্গ টেনে জয় বলেন, ‘যে কারণে গত দুই সপ্তাহ আরো তাৎপর্যপূর্ণ ছিলো তা হচ্ছে- কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজম কারাগারে মৃত্যুবরণ করেছে। তার শাস্তি যথেষ্ট ছিল না, কিন্তু ন্যায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের সময়ে গোলাম আযম যেমন স্বাধীন মানুষ ও রাজনৈতিক নেতার মর্যাদা ভোগ করেছে, সে পরিচয়ে তার মৃত্যু ঘটেনি।’

প্রধানমন্ত্রীর এ তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, ‘গোলাম আযমের দেশে ফিরে আসা ও রাজনৈতিক নেতৃত্ব গ্রহণের সুযোগ করে দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। অথচ তিনি নিরীহ বেসামরিক মানুষকে পাকিস্তানের পক্ষে হত্যা করেছিল। বঙ্গবন্ধুর কন্যা ও দল তাকে দীর্ঘ ৪০ বছর পর বিচারের মুখোমুখী করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আজ আমি একজন বাঙালি হিসেবে আমার দেশের সরকার ও জাতিকে নিয়ে অত্যন্ত গর্বিত।’






মন্তব্য চালু নেই