মেইন ম্যেনু

‘খালেদা জিয়া রাজাকার মাতা’

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে পাকিস্তানের দোসর রাজাকার মাতা হিসেবে অভিহিত করেছে বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ নির্মূল আন্দোলন।

মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ নির্মূল আন্দোলনের এক সাংবাদিক সম্মেলনে সংগঠনটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার কাজী শাহাদৎ হোসেন এ মন্তব্য করেন।

আগরতলা সশস্ত্র বিল্পবের সংগঠক কাজী শাহাদৎ বলেন, ‘সরকার যখন নরপশু যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করেছে ঠিক তখনই বেগম খালেদা জিয়া জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটিয়ে তাদেরকে রক্ষা করতে চাইছে। আসলে তিনি প্রকৃত অর্থে পাকিস্তানের দোসর ও রাজাকার মাতা।’

তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান খুনি মোশতাকের সঙ্গে আঁতাত করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছেন। তারপর মেজর জেনারেল খালেদ মোশাররফ, কর্নেল হায়দার, কর্নেল হুদাসহ সামরিক বাহিনীর অনেক অফিসারকে হত্যা করে তৎকালীন বন্দি রাজাকার, আলবদর, আল সামসদের মুক্ত করে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, স্বাধীনতা বিরোধীদেরকে হিজবুল্লাহর জাহাজে উঠিয়ে দিয়ে টাকা ও অস্ত্র দিয়ে স্বাধীনতার সপক্ষের শক্তিকে হত্যা করার হুকুম দিয়েছেন। যার মাধ্যমে তিনি দেশে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করেছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘জিয়াউর রহমান ও তার দোসররা বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করে রাজাকারদের মন্ত্রীত্ব দিয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তাই জিয়াউর রহমান ও খন্দকার মোশতাকের মরনোত্তর বিচার হওয়া উচিত।’

বক্তরা জানান, জঙ্গিবাদ থেকে মানব জাতিকে রক্ষা করতে ২০১২ সালের ১০ নভেম্বর রাজাকার, আলবদর ও জঙ্গিবাদ নির্মুল কমিটি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলেও বর্তমানে বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ নির্মুল আন্দোলন নামে পুনর্গঠিত হয়েছে। মুক্তিবাহিনীর কমান্ডার ইঞ্জিনিয়ার কাজী শাহাদৎ হোসেন ও একরামুল হক টিটুকে যথাক্রমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্যের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই