মেইন ম্যেনু

কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডার’ পদকে রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের সুপারিশ

‘কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডার’ পদকে অতিদ্রুত রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করেছে কমিটি।
সারাদেশের সরকারি হাসপাতালগুলোতে ওষুধ ও অন্যান্য সামগ্রী ক্রয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে সংসদীয় কমিটিতে। বাজারে প্রচলিত মূল্যের চেয়ে অধিক মূল্য দেখিয়ে সরকারি কোষাগার থেকে টাকা ওঠিয়ে নিচ্ছেন এসব সামগ্রী ক্রয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ৬৪ জেলা সদর হাসপাতালের জন্য ক্রয়কৃত ওষুধ ও অন্যান্য সামগ্রী ক্রয়ের মূল্য তালিকা আগামী বৈঠকে উপস্থাপনের নির্দেশ দিয়েছে কমিটি। বুধবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে দেশের সকল সরকারি হাসপাতালে শূন্য পদসমূহে প্রয়োজনীয়, ডাক্তার, নার্স ও জনবল নিয়োগের জন্য মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়েছে।

এসময় কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিক নিয়েও আলোচনা হয়। প্রত্যন্ত এলাকার জনগনের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র হিসেবে কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিকগুলোকে গড়ে তোলার পাশাপাশি ‘কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডার’ পদকে অতিদ্রুত রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করেছে কমিটি।

বৈঠকে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে গৃহীত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়। কমিটি চলমান প্রকল্পগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য দৃঢ় পদক্ষেপ গ্রহণ, মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার এবং কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে মন্ত্রণালয়কে পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ করেছে।

এছাড়া বৈঠকে নবম জাতীয় সংসদের প্রথম থেকে শেষ অধিবেশন পর্যন্ত সময়ে সংসদ ফ্লোরে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের জন্য প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দেয়া প্রতিশ্রুতিগুলো দ্রুত বাস্তবায়নের সুপারিশও করা হয়েছে।

কমিটির সভাপতি কাজী কেরামত আলীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও হুইপ মো. শহীদুজ্জামান সরকার, মো. আব্দুল মজিদ খান এবং মীর মোস্তাক আহমেদ রবি অংশ নেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং আইএমইডি’র সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই