মেইন ম্যেনু

আ.লীগের রাজনীতির জন্য নোবেল দাবি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান বলেছেন, ‘এ সরকার যারা চালায় তাদের ৫ জন সচিব। তারা ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা। অবাক হওয়ার কিছুই নাই। এতে আমি অবাক হইনি। যে সরকার দেশে একটি ভুয়া সংসদ তৈরি করেছে ভুয়া নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠন করেছে। তাদের কোনো ভিত্তি নেই। আমার জীবনে কখনও শুনি নাই কোনো দেশে দেখিনি বিরোধী দলের নেতারা মন্ত্রিসভায় আছে।’

রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে বিএনপির ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী ভূমিহীন দল আয়োজিত গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে জাতীয়তাবাদী শক্তির করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, ‘সুইডেনকে পলিটিক্যাল সায়েন্সে একটি নোবেল পুরস্কার চালু করতে হবে। কেননা আওয়ামী লীগ এমন একটি রাষ্ট্রবিজ্ঞান আবিষ্কার করেছে যেখানে রাজনৈতিক দল একই সাথে সরকারেও থাকে আবার বিরোধী দলেও থাকে। এই ধরনের জ্ঞান সভ্য পৃথিবীর অতীতে কেউ দিয়েছে কি না জানা নাই। এই আবিষ্কারের পুরস্কারতো নোবেল পুরস্কারই হতে হবে। অন্য কিছু হতে পারে না।’

বিএনপির ভেতরে যতো মুক্তিযোদ্ধা আছে আওয়ামী ততো নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

বিএনপির মতো একটি রাজনৈতিক দলের সদস্য হতে পেরে গর্ববোধ করেন উল্লেখ করে মঈন খান বলেন, ‘যে দলের সভাপতি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের বীর উত্তম। যিনি সেই সময় স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন যখন দেশে ছিল তৎকালীন পলায়নপর রাজনৈতিক নেতৃত্ব। যারা নিজেদের রাজনৈতিক দায়িত্বকে জলাঞ্জলি দিয়ে এই দেশের সীমানা টপকে অন্য দেশে পালিয়েছিল।’

এ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি এমএ তাহের। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট নিতাই চন্দ্র রায়, সাবেক এমপি আব্দুল গফুর ভূঁইয়া, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান ভূঁইয়া প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই