মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ওয়ার্কার্সপার্টি নেতা অধ্যা.আবুল খায়েরের বক্তব্যে সমালোচনার ঝড়

‘৭টি উকিল মরলে দাড় কাক হয়, সাংবাদিক ও পুলিশ চাঁদাবাজি করে’

‘৭টি উকিল মরলে একটা দাড় কাক হয়, সাংবাদিক ও পুলিশ চাঁদাবাজি করে, সাংবাদিকরা থানায় দালালি করে ও নেশাগ্রস্থ’- এমনই ঊর্দ্ধতপূর্ণ কথা বললেন কলারোয়া পাবলিক ইন্সটিটিউটের সভাপতি, পৌর ওয়ার্কার্সপার্টির সদস্য ও শেখ আমানুল্লাহ কলেজের সহকারী অধ্যাপক আবুল খায়ের। বুধবার সন্ধ্যায় কলারোয়ায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে ‘ঢালাও ভাবে’ উকিল ও সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে এমন নেতিবাচক কথা বলেন তিনি। সাতক্ষীরার এসপি চৌধুরী মঞ্জুরুল কবীরের সামনেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিকরা সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টির তীব্র প্রতিবাদও জানান। ‘গুটি কয়েক’ ব্যক্তির নেতিবাচক অপকর্মের দায়ভার ‘ঢালাও ভাবে’ ‘সকল’ উকিল বা সাংবাদিকদের উপর চাপানোয় তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহলে। তার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে কলারোয়া প্রেসক্লাব ও রিপোটার্স ক্লাবের সকল সাংবাদিক। এদিকে, আইনজীবী, সাংবাদিক ও পুলিশকে উদ্দেশ্য করে অধ্যাপক আবুল খায়েরের এমন বক্তব্যের সমালোচনার মুখে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক ও মুখপাত্র মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রউফ প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে দু:খ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আমি ও আমার দল এ ধরণের বক্তব্যকে কোন ভাবেই সমর্থন করিনা। এ ধরণের বক্তব্যে তিনি ব্যথিত ও মর্মাহত। পরে প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে ওপেন হাউজ ডে-তে দেয়া নিজের বক্তব্যের জন্য দূঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করেন সহকারী অধ্যাপক আবুল খায়ের।






মন্তব্য চালু নেই