মেইন ম্যেনু

১৫ বছর ধরে পুতুলের সাথে সংসার…

কখনও কল্পনা করেছেন কি পুতুলের সাথে মানুষ সংসার করতে পারে? তাও আবার দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে!!বিষয়টি আপনার কল্পনার বাইরে হলেও সত্যিই পৃথিবীতে রয়েছে এমন মানুষ যে দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে রীতিমত সংসার করছে পুতুলের সাথে!!!

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের এক ‘টেকনোসেক্সুয়াল’ ব্যক্তি সিনথেটিক একটি পুতুলের সঙ্গে সুখেই সংসার করছেন দীর্ঘ ১৫ বছর!!শুধু তাই নয়, মানুষের অসামঞ্জস্য আচরণের সাথে তাল মিলিয়ে চলার থেকে পুতুলের সাথে সংসার করাকেই অনেক উত্তম বলে মনে করেন তিনি।

এই অদ্ভুত ব্যক্তির নাম ডেভক্যাট। বয়স ৪০ বছর। তিনি পুতুলের অধিকার রক্ষা ও পুতুলের সঙ্গে বিয়ের ব্যাপারে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার কাজে নিজেকে একজন সচেতন কর্মীও মনে করেন। পুতুলের সঙ্গে সংসারের বিষয়টি তিনি সমাজে ছড়িয়ে দিতে চান।

মানুষের মতো সিডোর কুরোনেকো নামের ওই স্ত্রী পুতুলটি কল্পিত একজন মেয়ের আঙ্গিকে বানানো। জেনে ভীষণ অবাক হবেন যে মনের মতো সিনথেটিক স্ত্রী বানাতে তিনি ব্যয় করেছেন ৬ হাজার ডলার!!শুধু তাই নয়, গাঁটছড়া বাঁধার ১৫তম বার্ষিকীটি স্মরণীয় করে রাখার জন্যে প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিশেষ কিছু করার।

টিএলসি’র একটি অনুষ্ঠান ‘মাই স্ট্রেঞ্জ অ্যাডিকশন’ ও বিবিসি’র ডকুমেন্টারি ‘গাইজ অ্যান্ড ডলস’ অনুষ্ঠানেও ডেভক্যাটকে তার সিনথেটিক স্ত্রীর সঙ্গে দেখানো হয়েছে। ২০১২ সালে তিনি এলেনা ভসত্রিকোভা নামের আরেকটি সিনথেটিক পুতুল কিনে আনেন। তাকে ‘মিসট্রেস’ হিসেবেই নিজের কাছে রেখেছেন। রাতে দুই পুতুলের সঙ্গে তিনি একই খাটে ঘুমান। নিজেই সেগুলোর পোশাক পরিবর্তন করেন, মেকআপ করে দেন।

পুতুলগুলোর শরীরের বিশেষ কিছু অঙ্গে সিলিকনের তৈরি কৃত্রিম ত্বক ব্যবহার করা হয়েছে। নকল জিহবাও রয়েছে।বিচিত্র মানসিকতার ডেভক্যাট স্বীকার করেছেন, সিনথেটিক পুতুলগুলো কেনার কারণের ৭০ শতাংশ হচ্ছে সেক্স। কারণের বাকি ৩০ শতাংশ হচ্ছে সঙ্গ পাওয়া। পুতুলগুলো তৈরিও করা হয়েছে ডেভক্যাটের শারীরিক ও মানসিক চাহিদার কথা মাথায় রেখে!!






মন্তব্য চালু নেই