মেইন ম্যেনু

হিন্দু জনসংখ্যা বাড়াতে শিবসেনার অদ্ভুত প্রচারণা!

ভারতে সংখ্যাগুরু হিন্দু জনগোষ্ঠীর সংখ্যা আরো বাড়াতে উত্তর প্রদেশে অভিনব কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ধর্মভিত্তিক দল শিবসেনা। ক্ষমতাসীন বিজেপি দলের সহযোগী এই দলটি কোনো হিন্দু পরিবারে ১০টির বেশি সন্তান থাকলে সেই পরিবারকে নগদ ২১ হাজার টাকা করে পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

এখানেই শেষ নয়। অধিক সন্তান-সন্ততির ওই দম্পতিকে দলের পক্ষ থেকে একটি  সনদপত্র দিয়ে  সম্মানিত করা হবে বলেও জানান হয়েছে।।ওই সনদপত্রে লেখা থাকবে, ‘দেশের স্বার্থে হিন্দুদের জনসংখ্যা বাড়ানোর জন্য।’ অন্য ধর্মাবলম্বীদের জনসংখ্যার প্রভাব খর্ব করতে এবং তাদের সঙ্গে টেক্কা দিতে শিবসেনা এই ঘোষণা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

হিন্দু জনসংখ্যা

এদিকে বিভিন্ন মহল থেকে শিবসেনার এই ধরণের কর্মসূচির ব্যাপক সমালোচনা করা হয়েছে। দিল্লির  ফতেপুরি মসজিদের শাহি ইমাম মুফতি মুকররম প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেছেন, ‘মুসলিমরা  নিজেদের সংখ্যালঘু ভাবে না। শিবসেনার প্রচেষ্টার নিন্দা জানাচ্ছি। মানুষের শান্তিপূর্ণ থাকা উচিত এবং দেশ সেবার ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করা প্রয়োজন।’

সমাজবাদী পার্টির নেতা রাজেন্দ্র চৌধুরী এ নিয়ে বলেছেন, শিবসেনা রাজ্যে সহিংসতা বাড়াতে  উষ্কানি দিতে চায়। কংগ্রেস নেতা রশিদ আলভী বলেছেন, শিবসেনার কাছে রাজ্যে একতা বৃদ্ধিতে উৎসাহ দেয়ার বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে না।

শিবসেনার রাজ্য সভাপতি অনিল সিং সংবাদপত্রে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, জেলায় জেলায় এমন পরিবারকে চিহ্নিত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে যেখানে ১০ জনের বেশি সন্তান রয়েছে। জানা গেছে, নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে দলের পক্ষ থেকে ওইসব পরিবারকে নগদ টাকা এবং সনদপত্র দেয়া হবে।

এছাড়া, হিন্দুদের পরিবার পরিকল্পনার বিরোধিতায় দলের পক্ষ থেকে আগামী ১ নভেম্বর থেকে আন্দলন শুরু করা হবে। নির্দিষ্ট কর্মসূচি  অনুযায়ী, সরকারি মেডিকেল হেলথ সেন্টারগুলোতে কিছুক্ষণের জন্য তালা দিয়ে রাখা হবে। শিবসেনার রাজ্য সভাপতি অনিল সিং বলেছেন, ‘আমরা হিন্দুদের কাছে আবেদন করব, তাদের জনসংখ্যা বাড়ানো এখন সময়ের দাবি। এটি না করলে দেশে আমরা নগন্য হয়ে যাব।’

সাত বছর আগেও একই রকম কর্মসূচি হাতে নিয়েছিল শিবসেনা।  সে সময় উত্তর প্রদেশের লক্ষৌতে ১০টির বেশি সন্তান ছিল এমন ১২০টি হিন্দু পরিবারকে ১০ হাজার রুপি করে  দেয়া হয়েছিল। এবার তা বাড়িয়ে ২১ হাজার টাকা করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই