মেইন ম্যেনু

হার্নান্দেজের গোলে সেমিতে রিয়াল

ইনজুরির মিছিল। বেল, বেনজেমা, মডিরচ, মার্সেলো থেকে শুরু করে তারকা ফুটবলাররা নেই হয়তো ইনজুরি কিংবা নিষেধাজ্ঞার কারণে। একা রোনালদো আর কত টেনে নেবেন। টানা ৭ ম্যাচ যে দলটিকে সেরা একাদশ নিয়েও হারানো যায়নি, সেই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদেক এমন ভঙ্গুর দল নিয়ে হারানোর চিন্তাটাও বাতুলতাছাড়া যেন আর কিছু নয়।

তবুও জয় পেলাে রিয়াল মাদ্রিদ। স্কোর বোর্ড হয়তো জয় বলছে, কিন্তু সেটা যে কতটুকু কষ্টের ছিল, তা একমাত্র কার্লো আনচেলত্তিই জানেন। গোলশুন্যভাবেই শেষ হতে যাচ্ছিল মাদ্রিদের দুই দলের লড়াই। কিন্তু সান্তিয়াগো বার্ণাব‌্যুর ৮০ হাজার দর্শককে এক পশলা স্বস্তি এনে দিলেন ম্যাক্সিকান হ্যাভিয়ের হার্নান্দেজ।

৮৯ মিনিটে ত্রাতা হিসেবে আবির্ভূত হন তিনি। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পাস থেকে হার্নান্দেজের অসাধারণ এক গোলেই অ্যাটলেটিকোকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করলো রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম লেগে অ্যাটলেটিকোর মাঠ ভিসেন্তে কালদেরনে গোলশুন্য ড্র হয়েিছল দুই মাদ্রিদের ম‌্যাচটি।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের ফিরতি পর্বের অপর ম্যাচে এএস মোনাকোর সাথে গোলশুন্য ড্র করেছে ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্তাস। প্রথম লেগে ১-০ গোলে জিতেছিল জুভরা। ফলে দুই লেগ মিলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে রিয়াল মাদ্রিদ এবং জুভেন্তাস উঠে গেল সেমিফাইনালে।






মন্তব্য চালু নেই