মেইন ম্যেনু

হত্যার অভিযোগে সাত পুলিশ বরখাস্ত

পুলিশ হেফাজতে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে সাত পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (সদর) মাসুদ উল হাসান।

বরখাস্তকৃতরা হলেন- পাঁচলাইশ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আমির হোসেন, বাকলিয়া থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. এনায়েত হোসেন, পাঁচলাইশ থানার কনস্টেবল মিজানুর রহমান, খোকন মিয়া, মোছলেম উদ্দিন, গাড়িচালক ও কনস্টেবল আকবর এবং প্রেষণে নিযুক্ত আনসার সদস্য শাহীনূর আলম।

পুলিশের এই সদস্যদের নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইনে রাখা হয়েছে। আনসার সদস্যকে নিজ বাহিনীকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে গ্রেপ্তার দুই পুলিশ সদস্য বর্তমানে গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন। তাদের আদালতে হাজির করার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানা গেছে।

এরআগে সোমবার সন্ধ্যায় পাঁচলাইশ থানার এসআই আমির হোসেন ও এক পুলিশ কনেস্টবলকে নগর গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল পাঁচলাইশ থানা থেকে গ্রেপ্তার করেছিল বলে জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জুন রাতে নগরীর বাকলিয়া থানার সৈয়দ শাহ রোড থেকে গ্রেপ্তার করা হয় সাবেক বীমা কর্মকর্তা রোকনুজ্জামানকে। এরপর পাঁচলাইশ থানা পুলিশের হেফাজতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

এঘটনায় ২৫ জুন রোকনুজ্জামানের স্ত্রী শিমু আক্তার বাদী হয়ে আদালতে ১০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে অনুসন্ধানপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার কুসুম দেওয়ানকে নির্দেশ দেন।

নিহতের ময়নাতদন্ত রিপোর্টে আঘাতজনিত কারণে মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে এবং অন্যদের বরখাস্ত করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই