মেইন ম্যেনু

সিসি ক্যামেরার ভয় দেখিয়ে নেতা-কর্মীদের সতর্ক

নেতা-কর্মীদের ৫১টি সিসি ক্যামেরার (ক্লোজ সাক্রিট ক্যামেরা) ভয় দেখিয়ে ধমক দিয়ে সতর্ক করলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর কলাবাগান মাঠে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সম্মেলনের শুরুতে তিনি নেতা-কর্মীদের সতর্ক করেন।

তার আগে প্রধান অতিথি এবং বিশেষ অতিথিদের নিয়ে সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ।

সকাল সাড়ে ৯টার পর থেকে মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা ব্যানার-ফেস্টুন, মিছিলসহ সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হতে শুরু করে। নির্ধারিত সময়ের আগেই সম্মেলনের প্যান্ডেল নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে জমজমাট হয়ে ওঠে। এরপরও বিভিন্ন ইউনিট থেকে উত্তর শাখার নেতা-কর্মীরা মিছিলসহ সম্মেলনস্থলে হাজির হতে শুরু করে। তার মধ্যে অনেকে প্যান্ডেলের মধ্যে জায়গা না পেয়ে বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে। অনেক নেতা-কর্মী মঞ্চের পাশে এসে শ্লোগান দিতে থাকে। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত নামজুল আলম উত্তেজিত হয়ে নেতা-কর্মীদের ৫১টি সিসি ক্যামেরার ভয় দেখিয়ে ধমক দিয়ে সতর্ক করেন।

তিনি বলেন, এটা কোন বাংলা কলেজ। ঢাকা মহানগর উত্তরে বাংলা কলেজ নামে কোন ইউনিট নাই। খবরদার আমরা কিন্তু দেখছি। ৫১টি সিটি ক্যামেরা লাগানো আছে। কেউ কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তার আগে নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে সম্মেলনস্থলে ব্যক্তি নামে শ্লোগান এবং ব্যানার না নিয়ে প্রবেশ করতে বারবার অনুরোধ করেন ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক রানা।

ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম রবিউল ইসলাম সোহেলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাপরিষদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, শেখ ফজলে নূর তাপস এমপি, প্রাক্তন ছাত্রনেতা তাসভিরুল হক অনু প্রমুখ।

সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

এর আগে ২০১১ সালের জুনে ঢাকা মহানগর উত্তরের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।






মন্তব্য চালু নেই