মেইন ম্যেনু

সাক্ষীর ঘাড়ে ধোনির কামড় !

ভারতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাহিন্দ্র সিং ধোনির স্ত্রী সাক্ষী। ২০১০ সালে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন তারা। এরপর থেকেই চেন্নাই সুপার কিংসের প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারিতে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে বাহারি পোশাকে গলা ফাটাতে দেখা গেছে সাক্ষীকে।

হাসিমুখে সাংবাদিকদের ছবির আবদার মেটান তিনি। কিন্তু রোববার ইডেন গার্ডেনে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের সঙ্গে অনুষ্ঠিত ম্যাচে তাকে দেখা গেল একেবারেই ভিন্ন মেজাজে।

মেয়ে জিভাকে নিয়েই মাঠে ছিলেন তিনি। শুরুতে গলা ফাটালেও পরের সময়টাতে ঝিমিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ধোনির দলের হার না দেখতে মুখ লুকিয়েছিলেন সাক্ষী। তাই সাক্ষীকে হাসি মুখের পাননি সাংবাদিকরা।

কিন্তু ধোনির স্ত্রীর মুখের ছবি না পাওয়া গেলেও ক্যামেরায় ধরা পড়ে গেল তার শরীরের নতুন ট্যাটুটি। সাক্ষী তার কানের নিচে একটি ট্যাটু এঁকেছিলেন। সেখানে তিনি হিন্দিতে ‘মাহি’ লিখিয়েছেন। অনেকেই মনে করেছিলেন, সাক্ষীর ঘাড়ে কামড় দিয়েছেন ধোনি। কিন্তু ঘটনা উল্টোটা।

ধোনিকে ভালোবেসে এ নামেই ডাকেন তিনি। স্বামীকে ভালোবাসা জানানোর জন্য তার নাম শরীরে ট্যাটু করানোর ঘটনা এটাই কিন্তু প্রথম নয়। হলিউড ও বলিউডের দম্পতিরাও ভালোবাসার মানুষটির নাম শরীরে খোদাই করান। সাক্ষী সেই দলেই নাম লেখালেন।






মন্তব্য চালু নেই