মেইন ম্যেনু

সমাধি ভাঙচুরের সুষ্ঠু তদন্ত চায় বিএনপি

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি ও দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধি ভাঙচুরের ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং এর জন্য দায়ী দুস্কৃতিকারীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি।

বৃহস্পতিবার রাতে এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানিয়ে দলটির মুখপাত্র আসাদুজ্জামন রিপন সমাধিসৌধের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ পুনর্নির্মাণসহ সুষ্ঠু রক্ষণাবেক্ষণের দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্মৃতিসৌধের বৃত্তাকার স্থাপনার কিছু অংশ রাতের আঁধারে দুর্বৃত্তদের হাতে ক্ষতিসাধনের সংবাদে আমরা উদ্বিগ্ন।’

বুধবার রাতের কোনো এক সময়ে চন্দ্রিমা উদ্যানে অবস্থিত প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধির কিছু অংশ ভেঙে ফেলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি সাধারণ লোকজনের চোখে পড়লে তা আলোচনায় আসে।

জিয়ার সমাধিস্থলের মূল বেদির চারদিকে নির্মিত মার্বেল পাথরের তৈরি ১২টি টাইলসের টুকরো তুলে ফেলা হয়েছে। তবে কখন এগুলো তোলা হয়েছে তা জানা যায়নি।

সমাধির তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে থাকা মিজানুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে তিনি এসে দেখেন ১২টি টাইলস তুলে ফেলা হয়েছে। এর মধ্যে চারটি দুর্বৃত্তরা নিয়ে গেছে। পাঁচটি ভেঙে টুকরো করে ফেলে গেছে।

জিয়াউর রহমানের সমাধিস্থলের রক্ষণাবেক্ষণে অবহেলার কারণেই এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে দাবি করে আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের বীরশ্রেষ্ঠদের সমাধি, শেখ মুজিবর রহমান, জিয়াউর রহমানসহ অতি গুরুত্বপূর্ণ সমাধিস্থলসমূহ রক্ষণাবেক্ষণ, নিরাপত্তা ও মর্যাদা রক্ষার দায়িত্ব সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের।

‘কিন্তু দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান এর সমাধিসৌধ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে নিয়োজিত সরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীর অবহেলার জন্যই জাতীয় সংসদের কাছেই অবস্থিত এই স্থাপনায় দুর্বৃত্তরা অপকর্ম সংঘটিত করতে পেরেছে বলে আমরা মনে করি’, বলেন তিনি।

রিপন আরো বলেন, ‘আমরা আশা করব, সরকার শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিসৌধের বৃত্তাকার ডিজাইনের কয়েকটি শ্বেতপাথরের প্লে¬ট ভাঙার ঘটনাটিকে গুরুত্বের সঙ্গে গ্রহণ করে জড়িতদের শাস্তির বিধান করবেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের অনভিপ্রেত ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে জাতীয় সমাধিসমূহের মর্যাদা রক্ষায় সচেষ্ট হবেন।’






মন্তব্য চালু নেই