মেইন ম্যেনু

সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী অষ্টম শ্রেনীর ছাত্রের হাত ধরে বের হল অজানার উদ্দেশ্যে…

একজন অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র, অপরজন ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী। বয়স অনুযায়ী তাদের শিশু না বলে কিশোর-কিশোরী বললেও ভুল বলা হয়। তবু তাদের মধ্যে গড়ে উঠেছে ভালোবাসার সম্পর্ক। মাত্র ৬ মাসের প্রেমের সম্পর্কে তারা একে অপরের হাত ধরে নিরুদ্দেশ হতে চেয়েছিল। কিন্তু বেরসিক পুলিশ তাদের স্বপ্ন ধুলোই মিশিয়ে দিল।
প্রেমিকযুগলের বাড়ি কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলায় হলেও প্রেমের সমাপ্তি ঘটেছে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানান, পেকুয়া উপজেলার মগনামা উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে একই স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই সম্পর্কের জের ধরে গত শুক্রবার রাতে তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে অজানার পথে পা বাড়ায়। সিএনজি অটো রিকশায় করে পালিয়ে যাওয়ার সময় বাঁশখালীতে পুলিশের নিয়মিত তল্লাশির মুখে পড়ে। অটোরিকশার ভেতরে কিশোর-কিশোরীকে দেখে পুলিশের সন্দেহ হলে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। তাদের দেওয়া তথ্যে পুলিশ নিশ্চিত হয় তারা বাড়ি থেকে পালিয়ে এসেছে। পরে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

বাঁশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান জানান, কিশোর-কিশোরী প্রেমের সূত্র ধরে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদের আটক করে থানায় আনা হয়। পরে তাদের অভিভাবকদের খবর দেওয়া হলে শনিবার রাতে উভয়ের অভিভাবকরা থানায় আসে।

পুলিশ ও অভিভাবকদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানান, তারা পরস্পরকে ভালোবাসে এবং বিয়ে করতে চায়। কিন্তু তারা অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় পুলিশ তাতে সম্মত না হওয়ায় বিয়ের ইচ্ছা পূরণ হয়নি। তাদের অভিভাবকদের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই