মেইন ম্যেনু

সদ্য মা হয়েছেন করিনা, এর মধ্যেই এই ছবিটা নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন রহস্য

করিনা কপূরের ঘরে এসেছে নতুন অতিথি তৈমুর। জন্ম নেওয়ার পর থেকেই ছেলে তৈমুরকে নিয়ে বিতর্ক। পুত্রসন্তানের নাম কেন এমন রাখা হল, তা নিয়ে প্রশ্নের ঝড়। চলছে করিনার সন্তানকে নিয়ে নানা জল্পনা।

করিনার থেকেও জনপ্রিয়তায় বোধ হয় এখন এগিয়ে গিয়েছেন সদ্যোজাত তৈমুর। করিনা শিরোনামে থাকতে থাকতেই খবরে চলে এসেছেন তাঁর দিদি করিশ্মা কপূরও। তৈমুরের মাসির একটা ছবি নিয়ে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ঝড় উঠেছে। করিশ্মার ভক্তকূল দুই আর দুইয়ে চার করতে শুরু করে দিয়েছেন।

হঠাৎ কী এমন ছবি পোস্ট করলেন করিশ্মা? সইফ ও করিনার ঘরে নতুন অতিথি আসার খবর জানিয়েছিলেন তাঁরাই। তার পরেই, তৈমুরের স্টাইলিশ মাসি সইফের কাঁধে হাত দিয়ে একটি ছবি পোস্ট করেন ইনস্টাগ্রামে। শুভ খবরটা জানানোর জন্যই সইফের সঙ্গে ছবি পোস্ট করেছিলেন করিশ্মা। আর এই ছবিই ঝড় তোলে সোশ্যাল সাইটে। ছবিটি পোস্ট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভক্তরা মন্তব্য করতে শুরু করেন। তাঁদের মধ্যে ডিপস_কে ও অনিতা ডাবের কথোপকথন পড়ে তো সবার চোখ কপালে ওঠার জোগাড়! দু’ জনের কথাতেই বেরিয়ে পড়েছে আসল সত্যিটা। ডিপসের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে লেখা তিনি টেলিভিশন প্রোডিউসার। কিন্তু অনিতা ডাবের প্রোফাইলে কিছুই লেখা নেই। তিনি নিজের পরিচয় দিতে চাননি। করিশ্মার পোস্ট করা ছবিটিকে উদ্দেশ্য করে ডিপস লিখেছেন, করিশ্মার বাঁ হাতটা দেখ। ও কি বিবাহিত?

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, করিশ্মার বাঁ হাতের অনামিকায় আংটি ঝুলছে। আর এই আংটিই তৈরি করেছে যাবতীয় প্রশ্ন। ডিপস ও অনিতা মনে করছেন, বিয়ে হয়ে গিয়েছে করিশ্মার। কিন্তু বিয়েটা কার সঙ্গে হল? গোটা দেশ জানে সন্দীপ তোশনিওয়ালের সঙ্গে করিশ্মার সম্পর্ক রয়েছে। তাহলে কি দু’ জনের বিয়ে হয়ে গিয়েছে? করিশ্মার ‘রিং ফিংগারে’ আংটির অর্থ তো সেটাই— করিশ্মা ও সন্দীপের বিয়ে হয়ে গিয়েছে। কিন্তু দু’ জনের যে বিয়ে হয়ে গিয়েছে, এমন কোনও খবর কিন্তু এখনও দেখা যায়নি সংবাদমাধ্যমে।

দু’ জনকে নিয়ে চলছে কতই না জল্পনা। টিনসেল টাউনে কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে, সঞ্জয় কপূরের সঙ্গে ডিভোর্সের পরে করিশ্মা কপূর সন্দীপ তোশনিওয়ালের প্রেমে মজেছেন। শোনা যাচ্ছে, এই জুটি নাকি এবার একই ছাদের নীচে রাত কাটাবেন! সম্প্রতি সন্দীপ বান্দ্রায় একটি নতুন ফ্ল্যাট কেনেন। আর এই ফ্ল্যাট কেনাই জন্ম দেয় যাবতীয় গসিপের।

আবার এ-ও শোনা যাচ্ছে, বড়দিনের ছুটিতে করিশ্মা ও সন্দীপ ছুটিতে সিঙ্গাপুরে যাচ্ছেন। নতুন বছরে আবার দেশে ফিরবেন তাঁরা। কোনটা যে সত্যি, তা অবশ্য বলা সম্ভব নয়। তবে যা রটে, তার কিছু তো সত্যি বটে! -এবেলা।






মন্তব্য চালু নেই