মেইন ম্যেনু

“শ্রীমঙ্গলে বানরের উৎপাতে অতিষ্ঠ পূর্বাশাবাসী”

সৌরভ আদিত্য, শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার): শ্রীমঙ্গলে এক বানরের আক্রমনে এপর্যন্ত গত ৯ দিনে গুরুতর আহত হয়েছে ৬ জন শিশু । ঘটনাটি ঘটে শ্রীমঙ্গল পৌরসভার (৪ নং ওয়ার্ড) পূর্বাশা আবাসিক এলাকায় ।

এলাকাবাসী জানান , গত প্রায় ২/৩ মাস যাবত দলছুট একটি অতিকায় বানর এলাকায় ঘোরাফেরা করছে । বানরটি বিভিন্ন সময় মানুষের কাপড় , খাবারের জিনিস নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে । রোদে শুকাতে দেওয়া বিভিন্ন জিনিস চোখের সামনেই নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে বানরটি । গত ৯ দিনে বানরটি মোট ৬ জন শিশুকে আহত করেছে । এতদিন বানরটির উৎপাতে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হলেও এখন থেকে নতুনকরে আতংক সৃষ্টি হয়েছে ।

শ্রীমঙ্গলের পূর্বাশা আবাসিক এলাকার বাসিন্দাদের আবেদন যে , এই বানরটিকে ধরে জংগলে ছেড়ে দেওয়া অথবা খাঁচায় বন্দি করে অন্যত্র সরিয়ে নিতে যথাযথ কর্তৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন ।

গত ৯ দিনে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে বারবার সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) তবিবুর রহমানের কাছে আবেদন জানানোর পরও তিনি এ সমস্যা সমাধানের জন্য দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেননি । ফলশ্রুতিতে এখন পর্যন্ত ৬ জন শিশু আহত । তিনি ফোনে জানান , এলাকাবাসী যেন গুলতি (গুলাইল) ব্যবহার করে বানরটিকে তারিয়ে দেন । এলাকাবাসী এই বানরের আক্রমন থেকে পরিত্রাণ চায় ।

এদিকে গতকাল শুক্রবার আনুমানিক দুপুর ১ টায় আড়াই বছরের এক শিশুকে আবারো বানরের আক্রমনের শিকার হতে হয়েছে । শিশুটি বাড়ির উঠানে তার বাবার সাথে খেলছিলো । এসময় বড় একটি বানর শিশুটির উপর হামলে পরে । বানরটি শিশুটিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে । শিশুটির চিৎকারে তার বাবা দৌড়ে গেলে , বানরটি শিশুটিকে আঘাত করে পালিয়ে যায় । এসময় শিশুটি পায়ে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয় । সাথে সাথে শিশুটিকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করা হয় ।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন আঘাতটি গুরুতর হলেও এতে সেলাই দেওয়া যাবেনা । তারা জানান কুকুর বা বানরের আঘাতে ক্ষতস্থানে সেলাই দেওয়া ঠিক না । শিশুটিকে ড্রেসিং করে ব্যান্ডেজ করে দেওয়া হয়েছে ও একটি ইংজেকশন দেওয়া হয়েছে । নিয়মিত ঔষধ খেলে এবং সময়মত ড্রেসিং হলে সে দ্রুত সেরে উঠবে ।

আঘাতপ্রাপ্ত শিশুটির নাম অর্পণ পাল । সে শ্রীমঙ্গল পৌরসভার (৪ নং ওয়ার্ড) পূর্বাশার হরিদ বরন পাল (অপু)’র ছেলে ।






মন্তব্য চালু নেই