মেইন ম্যেনু

শৈত্য প্রবাহ আর ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত উত্তরাঞ্চল

শৈত্য প্রবাহ আর ঘন কুয়াশায় বিপর্যস্ত সিরাজগঞ্জসহ পুরো উত্তরাঞ্চল। গত ২ দিন সূর্যের মুখ দেখেনি এ অঞ্চলের মানুষেরা। কুয়াশার সঙ্গে সূর্য্যরে লুকোচুরি খেলা চলছে দিন ভর। জন জীবনে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সড়ক মহাসড়কে যানবাহন চলছে শ্লোথ গতিতে। সকালে হেড লাইটের আলো জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে।
সন্ধ্যার পর পর শহর ফাকা হয়ে পড়ছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে বের হচ্ছে না। ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল হাওয়া শীতের তীব্রতা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। কুয়াশার কারনে সরিষা সহ শীতের ফসল তিগ্রস্ত হওয়ার আশংকা করছেন এ অঞ্চলের কৃষকরা। হঠাৎ করে শীত নামায় সর্দি কাশি, শ্বাসকষ্ট, কোল্ড ডায়রিয়া সহ শীত জনিত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে বৃদ্ধ এবং শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে বেশি।
জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শীতে অসুস্থতা জানিত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। শীত বস্ত্রের অভাবে সিরাজগঞ্জ সহ উত্তরাঞ্চলের প্রায় ৩০ লাখ দরিদ্র মানুষ বিপাকে পড়েছেন। সরকারী ভাবে এখন পর্যন্ত শীতার্ত মানুষের মাঝে কোন শীতবস্ত্র বিতরন করা হয়নি। শীত বস্ত্রের অভাবে আগুর জ্বালিয়ে রাত কাটাচ্ছে মানুষ। ঘন কুয়ার কারনে রাস্তা ঘাট ও নদী পথে যান বাহন এবং নৌ চলাচলে বিপত্তি ঘটছে। জেলা ও উপজেলা গুলোতে লোকজনের আগমন কমে গেছে। বিশেষ করে চরাঞ্চলের হত দরিদ্র মানুষ বিপাকে পড়েছেন আরো বেশি। খড় কুটোতে আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টা করছেন তারা। সন্ধ্যা শুরু হতে না হতেই কুয়াশা চাদরে ঢেকে পড়ে পুরো উত্তরাঞ্চল। এ কারনে যানবাহনের যাত্রীদের গন্তোব্যে পৌঁছতে সময় লাগছে অনেক সময় লাগছে।






মন্তব্য চালু নেই