মেইন ম্যেনু

শিক্ষিকা লাঞ্ছণার প্রতিবাদে জবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন, আল্টিমেটাম

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষিকাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছণার প্রতিবাদে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা। এসম তারা লাঞ্ছণাকারী ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আরজ মিয়ার ছাত্রত্ব বাতিল ও তার স্থায়ী বহিষ্কার চেয়ে প্রশাসনকে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন।

এব্যাপারে লোক প্রশাসন বিভাগের চেয়ারপার্সন ড. আসমা বিনতে ইকবাল বলেন, শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছে।

সোমবার সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে শতাধিক শিক্ষার্থী ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচায কাযালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে।

এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, আরজ মিয়াকে স্থায়ী বহিষ্কারের পাশাপাশি ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তার ছাত্রত্ব বাতিল কতে হবে। অন্যথায় বৃহত্তর কর্মসূচী প্রদান করা হবে।

তারা বলেন, বর্ষবরণ উৱসবে নারী লাঞ্ছণার প্রতিবাদে যখন দেশব্যাপী বিক্ষোভ চলছে তখনই জগন্নাথে একজন শিক্ষিকাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হল।
এদিকে একই দাবিতে শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের উদ্যোগে পুরো ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কয চত্বরে সমাবেশ করে শিক্ষার্থীরা।

সমাবেশে সংগঠনটির সভাপতি মাসুদ রানা বলেন, শিক্ষককে লাঞ্ছণাকারী আরজ মিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করতে হবে।
রবিবার দুপুরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের ওই শিক্ষিকাকে পথরোধ করে প্রথমে ধাক্কা, পরে কাপড় ধরে টানাটানি এবং চড় মারেন শাখা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক এবং ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের আরজ মিয়া।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা তাকে পুলিশে সোপর্দ করলেও ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পুলিশের হাত থেকে তাকে ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা একইদিন উপাচাযের ভবন ঘেরাও করলে সেখানেও ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হামলা চালায়।






মন্তব্য চালু নেই