মেইন ম্যেনু

শহীদ মিনার দখলে নেয়ার চক্রান্ত

শহীদ মিনারের মতো পবিত্র স্থানটিও ক্ষমতাসীনরা দখলে নেয়ার চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেছেন, ‘দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, বুদ্ধিজীবী ও রাজনীতি বিশ্লেষক ড. পিয়াস করিমের মতো একজন স্বাধীনচেতা, আপোষহীন ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারী মানুষের মরদেহ শহীদ মিনারে আনতে প্রতিহতের ঘোষণা কেবল অশোভনীয়ই নয় বরং শহীদ মিনারের মতো পবিত্র স্থানটিও নিজেদের দখলে নেয়ার চক্রান্ত।’

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘তথাকথিত মহাজোট সমর্থিত বর্তমান অবৈধ সরকারের কয়েকটি ছাত্র সংগঠন কর্তৃক সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য অধ্যাপক ড. পিয়াস করিমের মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আনতে না দেয়ার হুমকি বর্তমান আওয়ামী সরকারের স্বেচ্ছাচারী শাসনের সর্বোচ্চ রূপ। এ ধরনের ধৃষ্টতার বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘ভাষা শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। দেশের বরেণ্য ব্যক্তিদের মৃত্যুর পর তাদের মরদেহ এখানে নিয়ে আসা হয় সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। এই পবিত্র স্থানটি কারো ব্যক্তিগত কিংবা দলীয় সম্পত্তি নয়।’ মহাজোটের শরিক দলগুলোর ছাত্র সংগঠনগুলোর এ ধরনের ধৃষ্টতাপূর্ণ ঘোষণা ক্ষমতাসীনদের মদদেই দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

আগামী ১৭ অক্টোবর শুক্রবার শহীদ মিনারে যথাযোগ্য মর্যাদায় সর্বস্তরের জনগণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য ড. পিয়াস করিমের মরদেহ রাখার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।






মন্তব্য চালু নেই