মেইন ম্যেনু

লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতারের দাবি এরশাদের

পবিত্র হজ ও তাবলিগ জামাত সম্পর্কে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ, নিন্দা এবং তাকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিবৃতিতে তিনি এ দাবি জানান।

এরশাদ বলেন, ‘পবিত্র ইসলামকে অবমাননা করে বক্তব্য দেওয়ায় সংবিধান লঙ্ঘন এবং মুসলিম জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার জন্য লতিফ সিদ্দিকীর অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।’

বিবৃতিতে প্রাক্তন এই রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের অন্যতম হচ্ছে হজ। তা নিয়ে লতিফ সিদ্দিকী যে জঘন্য ও কুৎসিত মন্তব্য করেছেন, তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই। হজের ব্যাপারে আজ পর্যন্ত অন্য কোনো ধর্মাবলম্বীরাও এ ধরনের কুৎসিত মন্তব্য করেনি। সেখানে বাংলাদেশের মতো একটি মুসলিম অধ্যুষিত দেশে- যেখানে ৯০ ভাগই মুসলমান, তাদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত হানার মতো লতিফ সিদ্দিকী যে জঘন্য কাজ করেছেন, তা এ দেশের জনগণ কখনো এবং কোনোভাবেই মেনে নেবে না।’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, ‘এ ধরনের জঘন্য কথা বলে তিনি শুধু বাংলাদেশি মুসলমানদের মনেই নয়, বিশ্বের কোটি কোটি মুসলমানের ধর্মীয় অনুভূতি ও বিশ্বাসের ওপরে চরম আঘাত হেনেছেন। এর জন্য শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না, দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। যেখানে দেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এবং সংবিধান অনুসারে কোনো সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা যাবে না, সেখানে লতিফ সিদ্দিকী ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে সরাসরি সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। তাই সংবিধান লঙ্ঘনের দায়ে তাকে অভিযুক্ত করতে হবে।’






মন্তব্য চালু নেই