মেইন ম্যেনু

রোমাঞ্চের অপেক্ষায় কোচ, চমক দেখাতে চান মামুনুল

জাপান ও বাংলাদেশের মধ্যে ব্যবধান ১১০ ও ৩২। এই পরিসংখ্যান দেখলে অনেকেরই চোখ কপালে উঠবে। কিন্তু আসলে ব্যাপারটা এমনই।

ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১৬৩। অপরদিকে, জাপানের ৫৩। এ ক্ষেত্রে দুই দলের ব্যবধান ১৬৩-৫৩=১১০।

এদিকে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) র‌্যাংকিংয়ে জাপানের অবস্থান ১ নম্বরে। আর বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩ নম্বরে। এখানে দুই দলের ব্যবধান ৩৩-১= ৩২।

আর যে দুটি দলের মধ্যে এতটা ব্যবধান থাকে তাদের মধ্যকার লড়াইটা কেমন হতে পারে, একবার ভাবুন তো। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে জাপান অনুর্ধ্ব-২১ দলের বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচ খেলতে মাঠে নামবে বাংলাদেশ অনুর্ধ্ব-২১ দল। অসম লড়াই বললেও ভুল হবে না! কিন্তু মাঠে কেউ কাউকে ছেড়ে খেলবে না।

বাংলাদেশের কোচ যেমন আগেভাগেই হুঙ্কার দিয়ে রাখলেন, জাপানের দুর্বলতার সুযোগ নিতে চান। বুধবার দুপুরে বাফুফে ভবনে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের কোচ সাইফুল বারী টিটো বলেন, ‘জাপানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ৮/৯ দিন সময় পেয়েছি। দলের মূল খেলোয়াড়দের সঙ্গে বাকিদের মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় লেগেছে। আশা করছি, দলের সমন্বয় আনতে পেরেছি। তবে যতক্ষণ না মাঠে নামছি তার আগে বলা মুশকিল যে আমাদের প্রস্তুতি কেমন হলো! এটুকু বলতে পারি, জাপানের বিপক্ষে একটি রোমাঞ্চকর ম্যাচ উপহার দিতে আমরা প্রস্তুত।’

তিনি আরো বলেন, ‘জাপান দল থাইল্যান্ডের অনুর্ধ্ব-২১ দলের বিপক্ষে খেলেছে। ম্যাচটিতে জাপান ২-০ গোলে জয় পেয়েছে। সেই ম্যাচের ভিডিও দেখে জাপানের দুর্বলতা বের করার চেষ্টা করেছি। আগামীকাল সেই ভুলের সুযোগ নিতে চাই আমরা।’

কোচের পাশেই বসা ছিলেন জাতীয় দলের অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম। কোচের সঙ্গে সুর মিলিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এশিয়ান গেমসে যে দল নিয়ে খেলেছি সেই দলের চেয়ে বর্তমান দলটি অনেক ভালো। বিজয়ের মাসে ভক্তদের চমক উপহার দিতে মুখিয়ে আছি আমরা।’

অপরদিকে, এশিয়ার নম্বর ওয়ান জাপানকে সমীহ করতেও ভুল করেননি মামুনুল, ‘সত্যি বলতে কি, জাপান এশিয়ার এক নম্বর দল। তাদের প্রত্যেকটি বিভাগই কিন্তু নম্বর ওয়ান। সুতরাং তাদের বিপক্ষে নিজের সেরাটা ঢেলে দিয়েই লড়াই করতে হবে।’






মন্তব্য চালু নেই