মেইন ম্যেনু

রাউজানে বিয়ে বাড়ীতে চোরের হানা

চট্টগ্রাম রাউজান উপজেলার পূর্বগুজরা ইউনিয়নের আধারমানিক গ্রামের বিয়ে বাড়ীতে চোরের হানার। যখন নুরুল আলম নুরু বর সেজে আনতে গেছেন বউ। তার সাথে আত্মীয়-স্বজন ও নিজের ঘরের আপনজরাও গেছেন বরযাত্রী হয়ে কমিউনিটি সেন্টারে। একারনে ঘরে এক-দুইজন বৃদ্ধা ও মহিলা স্বজন ছাড়া ঘরটি প্রায় ফাঁকা ছিল। সে সুযোগটাই কাজে লাগানোর চেষ্ঠা করলো ওঁৎ পেতে থাকা এক চোর। কিন্ত শেষ রক্ষা হলোনা। ঘরে ঢুকে স্বর্ণ, টাকা, মোবাইল ও মালামালসহ সবকিছু নিয়ে চ¤পট দেয়ার আগে ধরা পড়লো হাতে নাতে। এরপর ক্ষুব্দ জনতা ওই চোরকে দিয়েছে গণপিটুনী। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৩ শে শনিবার দুপুরে রাউজানের পূর্বগুজরা ইউনিয়নের আধার মানিক গ্রামের অলিমিয়াহাট এলাকায়। জনতার হাতে ধৃত চোর মো. মিজান (২৭) হাটহাজারী উপজেলার বুড়িশ্চর এলাকার মো. রফিকের পুত্র।

এলাকার মেম্বার জাগির হোসেন ও প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান,শনিবার ছিল আধার মানিক গ্রামের অলিমিয়াহাটস্থ মৃত আনোয়ার সওদাগরের ছেলে নুরুল আলম নুরুর বিয়ে। বিয়ের অনুষ্ঠানস্থলটি বাগোয়ান গশ্চির অতিথি গার্ডেন কমিউনিটি সেন্টার। দুপুর তিনটার দিকে রবসহ বরযাত্রী বউ আনতে ঘর ফাঁকা করে কমিউনিটি সেন্টারে চলে যান। ঘরে ছিল এক-দুইজন বৃদ্ধ ও মহিলা। তারা অন্যান্য কাজে ব্যস্ত ছিল। এই ফাঁকে পূর্বে থেকে এই সুযোগের অপেক্ষায় ওঁৎ পেতে থাকা চোর মিজান বরের ঘরে ঢুকে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপর ঘরের আলমিরা খুলে নগদ ২২ হাজার টাকা, স্বর্ণালংকার, ২টি মোবাইল সেটসহ দামী জিনিসপত্র নিয়ে চ¤পট দেয়ার চেষ্ঠা করে।

এসময় কাজ সেরে ঘরে ঢুকা বরের আত্মীয় (এক মহিলা) ওই চোরকে দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে অন্যান্য মহিলাসহ বাড়ির লোকজন এসে চোর মিজানকে আটক করে। এরপর এলাকাবাসী তাকে গণধোলাই দেয়। এলাকার মেম্বার জাগির হোসেন জানান, চুরির শিকার বরের পরিবার মামলা করতে রাজী না হওয়ায় চোরের আÍীয় স্বজনকে খবর দেয়া হয়। সন্ধ্যায় চোর মিজানের বড় ভাই মো. আনোয়ার ও বোন শামীমা আকতার আসেন। তারা মুচলেখা দিলে চোর মিজানকে তাদের হাতে তুলে দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই