মেইন ম্যেনু

রসিদ না দেওয়ায় রেস্তোরাঁকে জরিমানা

পণ্য কেনার পর রসিদ না দেওয়ায় রাজধানীর পান্থপথের বসুন্ধরা শপিং মলে অবস্থিত ‘ঢাকাইয়া রেস্তোরাঁ’কে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অন্যদিকে মূল্য বেশি রাখা এবং প্রতারণার অভিযোগে আরো তিন প্রতিষ্ঠানকে ২২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অবস্থিত জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক প্রণব কুমার প্রামাণিক ভোক্তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে শুনানি শেষে এ জরিমানা করেন।

অপর প্রতিষ্ঠানগুলো হলো পুরান ঢাকার বকশী বাজারের ঢাকেশ্বরী এলাকার দরবার রেস্তোরাঁ, ফার্মগেটের বাবুল টাওয়ারের স্কাই রেস্টুরেন্ট ও রাজধানীর খিলগাঁওয়ের তালতলার এলাকার আল ফেস্কো রেস্তোরাঁ।

ভোক্তা অধিদপ্তরের কাছে লিখিত অভিযোগে আলী তানজিম বিন মাসুদ নামের এক ব্যক্তি উল্লেখ করেন, ঢাকাইয়া রেস্তোরাঁয় খাবার শেষে বিল দিতে গেলে রেস্তোরাঁর ম্যানেজার তাঁকে রসিদ দিতে রাজি হননি। পরে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে সাদা কাগজে খাবারের বিল লিখে দেন তিনি। রসিদ না দেওয়ায় ঢাকাইয়া রেস্তোরাঁ ভোক্তা অধিকার লঙ্ঘন করেছে বলে তিনি অভিযোগে উল্লেখ করেন।

এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকাইয়া রেস্তোরাঁ কোনো যুক্তি দিতে না পারায় ওই প্রতিষ্ঠানকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অন্যদিকে দরবার রেস্তোরাঁকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ওই রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে নুসরাত তানজিম তালুকদার লিখিত অভিযোগ করেন। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, রেস্তোরাঁটি তাঁর কাছে ১০ টাকা মূল্যের পানি ২০ টাকা রেখেছিল।

স্কাই রেস্টুরেন্টকে খাবারের দাম বেশি রাখার অভিযোগে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন জহির আহমেদ চৌধুরী নামের এক ভোক্তা।

আল ফেস্কো রেস্তোরাঁকে প্রতারণার অভিযোগে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ওই রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন ফাহমিদা সেলিম নামের এক ভোক্তা। তিনি লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, মাম ব্র্যান্ডের পানির বোতলের গায়ে নির্ধারিত মূল্য উঠিয়ে ফেলে আল ফেস্কো রেস্তোরাঁ। তাঁর কাছ থেকে ৫০০ মিলিলিটার পানির দাম রাখা হয় ২০ টাকা।

জরিমানার বিষয়ে সহকারী পরিচালক প্রণব কুমার প্রামাণিক বলেন, ‘ভোক্তার অধিকার আদায়ের জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ভোক্তারা কোনোভাবে প্রতারিত হলে তাঁরা যেন অবশ্যই আমাদের কাছে অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে যথাযথভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।’






মন্তব্য চালু নেই