মেইন ম্যেনু

যৌন হয়রানি নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে উবার

অনলাইন পরিবহন নেটওয়ার্ক কোম্পানি উবারের সাবেক প্রকৌশলী সুসান ফ্লাওয়ারই স্বয়ং কোম্পানির বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির তোপ দেগে বসেন।

এরপরই তাদের টনক নড়েছে। উবারে দায়িত্ব পালনকারী নারী কর্মীদের যৌন হয়রানির তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। খবর ম্যাশেবল, বিবিসির।
রোববার সন্ধ্যায় উবারের প্রধান ট্রাভিস কালানিক এক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দিয়েছেন।

এতে বলা হয়েছে, বিষয়টি তদন্তের জন্য ট্রাভিস উবারের নতুন প্রধান হিউম্যান রিসোর্চ (এইচআর) অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছেন।

যদি কেউ এমনটা করে থাকে বা সমর্থন দেয়, তাহলে তাকে বরখাস্ত করা হবে বলেও হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

সম্প্রতি উবারের নারী কর্মীদের প্রতি কোম্পানির কর্তাব্যক্তিদের আচরণ নিয়ে বেশ বিতর্ক হচ্ছে।

এই বিতর্ককে আরও উস্কে দেন কোম্পানির সাবেক প্রকৌশলী সুসান ফ্লাওয়ার। রোববার নিজের ব্লগে উবারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন তিনি।

২০১৫ সালে উবারে যোগ দিয়েছিলেন সুসান ফ্লাওয়ার। স্যান-ফ্রান্সিসকোভিত্তিক এই কোম্পানিতে যোগ দেয়ার পরপরই তার নতুন ম্যানেজার অশোভন আচরণ করেন বলে সুসান জানিয়েছেন।

ব্লগে তিনি অভিযোগ করেন, ম্যানেজার তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে যেতে বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেছেন। চ্যাট বক্সে ম্যানেজারের পাঠানো মেসেজের স্ক্রিনশট নিয়ে বিষয়টি এইচআর বিভাগে অভিযোগ জানান সুসান। কিন্তু অভিযোগের পরও ওই ম্যানেজারের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

এ অভিযোগের প্রেক্ষাপটে উবারের প্রধান ট্রাভিস কালানিক বলেছেন, সুসান যেটা বর্ণনা করেছেন সেটা জঘণ্য এবং উবারের বিশ্বাস ও মূল্যবোধের পরিপন্থী।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের হিসাব অনুযায়ী, বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান স্টার্টআপ বা নতুন ব্যবসায় উদ্যোগ হল উবার।

বিশ্বের ৪৫০টির বেশি শহরে এর কার্যক্রম চালু আছে। গত বছরের শেষ নাগাদ দক্ষিণ এশিয়ার ৩৩তম শহর হিসেবে ঢাকায় কার্যক্রম শুরু করে উবার।






মন্তব্য চালু নেই