মেইন ম্যেনু

যে সমস্ত অভিনেতা বিয়েতে ‘হ্যাটট্রিক’ করেছেন

এ যেন ঠিক তাসের ঘর। ‘বিয়ে’ শব্দটা এদের কাছে যেন নেহাতই পাতা। বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে যত সময় লাগে তার থেকে কম সময় নেয় সম্পর্কটা ভাঙতে। কিংবা হয়ত আমাদের আপেক্ষিক দৃষ্টিতে ধরা পরছে তা সত্য নয়। যেমনি মনের মানুষ খুঁজছেন তেমনি পাচ্ছেন না। বলিউডের এমন কয়েকজন সেলেব্রিটির নাম রইল যারা একবার, দুইবার নয় বিয়ে করেছেন তিন তিন বার। অর্থাৎ বিয়েতে ‘হ্যাট্রিক’ করার খ্যাতি অর্জন করেছেন।

চোখ রাখব এই লিস্টে:

কিশোর কুমার
কিশোর কুমার প্রথম বিয়েটা করেন ১৯৫০ সালে রূপা গুহার সঙ্গে। এই সম্পর্কের আয়ু হয় আট বছর। এরপর ১৯৬০ সালে কিশোর দা ‘ট্রাজেডি কুইন’ মধুবালার সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এবার মেদায় বাড়ল এক বছর। কিশোর আর মধুবালার সংসার ছিল নয় বছরের। এর পর অনেকের সঙ্গে এই গায়কের সম্পর্কের নানা ব্যক্তিগত কথা কানে এলেও তৃতীয় বিয়েটা তিনি করেন যোগীতা বালিকে। পরে অবশ্য এই সম্পর্কও ভেঙে গিয়েছিল। শোনা গিয়েছিল তিনি আবার প্রেমে পড়েছিলেন লীনা চন্দ্রভারকারের। তবে এই সম্পর্ক বিয়েটা করার আগেই মারা যান কিশোর কুমার।

সঞ্জয় দত্ত
বলিপাড়ায় কান পাতলে এই নায়কের সম্পর্কে কেচ্ছা কিছু কম শোনা যায় না। তবে তিন তিন বার বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই বলিউড হিরো। প্রথমে রিচা শর্মাকে বিয়ে করে সঞ্জু। তবে এই সম্পর্কে আদালতের শিলমোহর নয় ভাগ্যের পরিহাসে ভেঙে যায় রিচা-সঞ্জয়ের ঘর। মস্তিষ্কের রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৯৬ সালে মারা যান রিচা। এরপর ১৯৯৮-এ আবার বিয়ে করেন নায়ক। এবার পাত্রী মডেল রিহা পিল্লাই। তবে ২০০৫ সালে ইতি পড়ে এই সম্পর্কে সঞ্জয় বিয়ে করেন মানাতাকে।

বিধু বিনোদ চোপড়া
প্রথম সারির প্রযোজকদের মধ্যে অন্যতম বিধু। তবে বলিউডকে যতই ব্লকবাস্টার হিট ছবি দিক না কেন সম্পর্কের খেলার একটু কাঁচা তিনি। ফিল্ম ইডিটর রানু সালুজাকে প্রথম বিয়ে করেন তিনি। এরপর বিনোদ বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন পরিচালক সাবনাম সুকদেবের। তবে বেশি দিন কেটে না এই সম্পর্ক। আপাতত কলকাতায় মেয়ে লেখিকা-সমালোচক অনুপমার সঙ্গে জমিয়ে সংসার করছেন তিনি।

আদনান স্বামী
১৯৯৩-এ জিবা বাকতিয়ার ও ২০০১-এ সাবা গালাদেরিকে বিয়ে করেন আদনান। কিন্তু কোন সম্পর্কই বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। আপাতত রোয়া ফারয়াবিকে বিয়ে করে সংসার করছেন এই গায়ক।

সিদ্ধার্থ রয় কাপুর
বতর্মানে বিদ্যা বালানের সঙ্গে চুটিয়ে সংসার করছেন সিদ্ধার্থ। তবে এর আগে দুটি বিয়ে করেছিলেন সিদ্ধার্থ কিন্তু কোনটাই টেকাতে পারেনি তিনি।






মন্তব্য চালু নেই