মেইন ম্যেনু

যেসব কারণে মানুষ বহুগামিতার প্রতি আগ্রহী হয়

শিরোনাম পড়ে ঘাবড়ে গেলেন? ভাবছেন পৃথিবীর প্রীতিটি মানুষই তাহলে সম্পর্কে প্রতারক? ব্যাপারটা আসলে ঠিক তা নয়। সম্পর্কে বহুগামিতা অনেক রকমের আছে, কোনটা স্রেফ মানসিক এবং কোনটা আবার ভয়াল রূপ নিয়ে এসে কড়া নাড়ে বাস্তব জীবনে।

মানসিক বহুগামিতায় পৃথিবীর প্রতিটি মানুষ আক্রান্ত। এমন কোন মানুষ খুঁজলে পাওয়া যাবে না, যিনি নিজের সঙ্গী ব্যতীত অন্য নারী বা পুরুষের সাথে সম্পর্কের কথা বা যৌনতার কথা ভাবেন নি। বাস্তব জীবনের মানুষ তো বটেই, এমনকি নায়ক-নায়িকাদের নিয়েও কাজ করে ফ্যান্টাসি। এবং হ্যাঁ, বিবাহিত মানুষদের মাঝেই বরং এই প্রবণতা বেশি দেখা যায়।

অন্যদিকে বাস্তবের বহুগামিতা থেকেই জন্ম নেয় সম্পর্কে প্রতারণা, বিবাহে পরকীয়া, মন আর সংসারের ভাঙন। কেউ কেউ এই বহুগামিতায় ধরা পড়েন, কেউ পড়েন না। তবে এমন কাজ করার মত মানুস সমাজে ভুরি ভুরি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, পৃথিবীতে কেন প্রায় প্রতিটি মানুষই বহুগামি কিংবা বহুগামিতার কথা ভাবেন? জবাব লুকিয়ে আছে হয়তো আমাদের জীবনেই।

১) বহুগামিতার প্রথম ও প্রধান কারণটিই হচ্ছে যৌন আকর্ষণ। ভিন্ন ভিন্ন যৌন সঙ্গী পাবার আকাঙ্ক্ষা বা ইচ্ছা থেকেই মানুষ বহুগামিতায় লিপ্ত হন। অনেকেই আছেন যারা বাস্তব জীবনে লিপ্ত হতে না পারলেও মানসিকভাবে লিপ্ত হন। পৃথিবীতে পর্ণগ্রাফির বাজার চড়া হবার এটাও একটা কারণ।

২) জীবনের পরিস্থিতিও একটা বড় কারণ বহুগামিতার পেছনে। অনেক কিছুই ঘটে আমাদের জীবনে, যার ফলে একাধিক সম্পর্কে জড়িত হতে বাধ্য হয়ে যাই আমরা। প্রেম হোক বা দাম্পত্য, একটি সম্পর্ক চিরকাল নাই-ই টিকতে পারে আর সেটাই বেশি স্বাভাবিক। যারা সকল বাঁধা পেরিয়ে সম্পর্ক ধরে রাখতে পারেন, তাঁরা আসলেই সৌভাগ্যবান।

৩) বহুগামিতার আরেকটা বড় কারণ হচ্ছে লিঙ্গ পার্থক্য। স্বভাবতই নারী ও পুরুষ উভয়কে পৃথকভাবে তৈরি করা হয়েছে। পুরুষ যেখানে সর্বদা চায় উন্মুক্ত, দায়িত্বহীন জীবন। নারী ঠিক তার বিপরীতে চায় সংসার, সন্তান ও নিরাপত্তা। এই ভিন্ন ভিন্ন চাহিদার কারণে নারী-পুরুষের বনিবনা না হওয়ার বিষয়টিও চিরন্তন। ফলে বহুগামিতার বিষয়টা চলেই আসে।

৪) সম্পর্ক একঘেয়ে হয়ে যাওয়ার বিষয়টিও মানুষকে ঠেলে দেয় বহুগামিতার দিকে। একই সম্পর্কে দীর্ঘদিন চলার পর স্বভাবতই হারিয়ে ফেলে নতুনত্ব। আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পুরনো সম্পর্কে নতুনত্ব ধরে রাখার বিষয়ে যত্নশীল হন না জুটিরা। ফলে সম্পর্কে চলে আসে বহুগামিতা।

৫) এছাড়াও আরও কিছু কারণ আছে। যেমন অন্যের সাথে তুলনা, ঈর্ষা, ঝগড়াটে স্বভাব বা কাউকে নিজের জন্য যোগ্য মনে না করা ইত্যাদি। তবে দিনশেষে কঠিন সত্য এটাই যে প্রাণী হিসাবে মানুষ বহুগামী, তা সে মানসিকভাবেই হোক কিংবা বাস্তব জীবনে। খুব মানুষই আছেন এই ব্যাপারটির বাইরে।






মন্তব্য চালু নেই