মেইন ম্যেনু

মুশারফকে বিদেশযাত্রায় অনুমতি সিন্ধ হাইকোর্টের

দিলীপ মজুমদার (কলকাতা): পারভেজ মুশারফকে পাকিস্তান ছাড়ার অনুমতি দিল সিন্ধ হাইকোর্টের দুই বিচারপতির বেঞ্চ।অসুস্থ মাকে দেখতে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি যাওয়ার অনুমতি চেয়েছিলেন তিনি ।প্রাক্তন সামরিক প্রেসিডেন্ট যাতে দেশ ছেড়ে কোথাও যেতে না পারেন, সেজন্য তাঁর নাম একজিট কন্ট্রোল লিস্টে (দেশের বাইরে যাওয়ার ওপর বিধিনিষেধ, নিয়ন্ত্রণ আছে, এমন ব্যক্তিদের তালিকা) ঢুকিয়েছিল পাক সরকার।মুশারফ তাঁর নাম ওই তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন।তাতে সাড়া দিয়ে শুনানি শেষে পাক কর্তৃপক্ষকে মুশারফের নাম তালিকা থেকে বাদ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি মহম্মদ আলি মাজহার ও বিচারপতি শাহনওয়াজ।ফলে বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা উঠে গেলে মুশারফ হয়ত আর এক পক্ষকালের মধ্যেই সংযুক্ত আরব আমিরশাহির বিমান ধরতে পারবেন।

পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের মুখে সাড়ে ৪ বছরের স্বেচ্ছা নির্বাসন ভেঙে গত বছরের মার্চে দেশে ফেরেন ৭০ বছর বয়সি মুশারফ কিন্তু দেশে ফিরতেই দেশদ্রোহিতা আইনে মামলা সহ একাধিক মামলায় বিচারের মুখে পড়েন তিনি।তাঁকে গৃহবন্দি করা হয়। নিষেধাজ্ঞা জারি হয় তাঁর বিদেশ যাত্রার ওপরও দোষী সাব্যস্ত হলে তাঁর মৃত্যুদণ্ড পর্যন্ত সাজা হতে পারে পাকিস্তানের ইতিহাসে তিনিই প্রথম প্রেসিডেন্ট যাঁর আদালতে বিচার হচ্ছে।মুশারফ অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন।।

সরকারের তরফে মুশারফের আর্জির বিরোধিতা করে বলা হয়েছিল, তিনি বিদেশ যাত্রার অনুমতি পেলে দেশের বাইরে গেলেই গা ঢাকা দিতে পারেন।তবে এদিন আদালতে শুনানির সময় সরকার পক্ষের কৌঁসুলি গরহাজির ছিলেন।তাঁর অনুপস্থিতিতে মুশারফের আর্জি গৃহীত হওয়ায় নানা মহলে জল্পনা চলছে, পর্দার আড়ালে মুশারফকে নিয়ে তলে তলে হয়ত বোঝাপড়া হয়েছে ক্ষমতাবান সামরিক বাহিনী ও সরকারের মধ্যে, যার জেরে মুশারফকে দেশের বাইরে যেতে দিতে আপত্তি জানাল না সরকার।

তবে এদিন আদালত জানিয়ে দিয়েছে, মুশারফের বিদেশযাত্রার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তে যাদের আপত্তি থাকবে, তারা যাতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে পারে, সেজন্য ১৫ দিন সময় দেওয়া হচ্ছে।সেই সময়সীমার মধ্যে দেশের বাইরে যেতে পারবেন না মুশারফ।

। ।






মন্তব্য চালু নেই