মেইন ম্যেনু

মীরজাফরদের সঙ্গে খালেদারও কবর হবে : ইনু

‘বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে কোনো সমঝোতার সুযোগ নেই’ উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘হয় আমরা থাকব নয়ত খালেদা ও রাজাকাররা থাকবে। এখানে মাঝামাঝি থাকার কোনো পথ নাই। তবে খালেদাকে থাকতে হলে যুদ্ধাপরাধী-জঙ্গিবাদ-রাজাকারদের ছেড়ে আত্মসমর্পণ করতে হবে। নয়ত মীরজাফরদের সঙ্গে তারও (খালেদার) কবর হবে।’

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব হলরুমে ঢাকাস্থ গোপালগঞ্জ সাংবাদিক সমিতি আয়োজিত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ‘এ শোক বহিবার নহে’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

‘সাবেক রাষ্ট্রপতি খন্দকার মোস্তাককে তৃতীয় ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে চতুর্থ মীরজাফর’ আখ্যা দিয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘তাদের উত্তরসূরি হলেন খালেদা। তিনিও তাদের মতো ইতিহাস ধামাচাপা দেয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। মোস্তাকরা ইতিহাস ধামাচাপা দিতে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। আর ইতিহাসের মীরজাফর উত্তরসূরি খালেদা ২১ আগস্ট শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা করেছিল।’

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘হাতির পিঠে পিঁপড়া আত্মকথা লিখতে পারে কিন্তু ইতিহাস লিখতে পারে না। বঙ্গবন্ধু হলো হাতির সমান। তাকে বাদ দিয়ে ইতিহাস হয় না। মিথ্যার চাদরে বাংলাদেশকে ঢেকে রাখলে গণতন্ত্র হোঁচট খাবে। কিন্তু জনগণ সত্য ইতিহাস চর্চা করেন। তারা জানেন সঠিক ইতিহাস। তাই ইতিহাস বিকৃতিকারীদের সঙ্গে তারা নেই।’

শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার মধ্যে পার্থক্য উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়াকে এক পাল্লায় মাপবেন না। কারণ শেখ হাসিনা রাজাকারকে রাজাকার বলেন আর খালেদা রাজাকারকে ফেরেস্তা বলেন।’

‘খালেদা রাজনীতিতে আসতে পাকিস্তানের মতো মানুষ মেরে ফেলার অপকৌশল গ্রহণ করেছে’ উল্লেখ করে ইনু বলেন, ‘তার অপকৌশল দেশের মানুষই প্রতিহত করবে।’

সভায় ঢাকাস্থ গোপালগঞ্জ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সেলিম ওমরাও খানের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন- সাবেক ডিইউজের সভাপতি ওমর ফারুক, সংগঠনের সদস্য শাবান মাহমুদ প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই