মেইন ম্যেনু

মাদারীপুরে সাংবাদিক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

মাদারীপুর প্রতিনিধি॥ মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক যায়যায় দিন পত্রিকার সাংবাদিক শহিদুল ইসলামকে গাছের সাথে বেধে নির্যাতনের ঘটনায় আজ রবিবার হাইকোর্টের স্বপ্রণোদিত রুল জারি করে। এ সময়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত ছবিসহ সংবাদের ভিক্তিতে বিচারপতি কাজী রেজা-উল ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ’র বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। রুলে বলা হয় থাকে সাংবাদিককে গাছের সাথে বেধে নির্যাতনের ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে না তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট তাই এ রুলের চার সপ্তাহের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, ডিআইজি ঢাকা রেঞ্জ, মাদারীপুরের পুলিশ সুপার, কালকিনির ইউএনও এবং কালকিনি থানার ওসিকে। সেই সাথে পুলিশ সুপারের পদমর্যাদার নিচে নয় এমন একজন কর্মকর্তাকে দিয়ে এ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
এদিকে সাংবাদিক শহিদুল ইসলামকে এক চাদাবাজির মামলায় জরিত করার প্রতিবাদে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মাদারীপুর প্রেসক্লাবের আয়োজনে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময়ে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মাদারীপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি গোলাম মাওলা আকন্দ, সাবেক সাধারন সম্পাদক ইয়াবুক খান শিশির, দৈনিক সুর্বণগ্রামের স্টাফ রিপোর্টার সাইফুর রহমান রুবেল খান, দৈনিক বিশ্লেষণ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক জহিরুল ইসলাম খান, দি ইন্ডিপেনডেন্ট পত্রিকার প্রতিনিধি আলী আকবর খোকা, শহিদুল ইসলামের স্ত্রী সালমা বেগম প্রমুখ। বক্তব্য তারা আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে চাদাবাজি মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তি দাবি জানান।
উল্লেখ্য গত ৭ এপ্রিল কালকিনির পূর্ব এনায়েতনগরে নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বাদল তালুকদারের সমর্থকরা সাংবাদিক শহিদুল ইসলামকে গাছের সাথে বেথে নির্যাতন করার সময়ে কালকিনি থানায় খবর দিলে পুলিশ সাংবাদিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এ সময়ে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ছোট ভাইসহ দুইজনকে আটক করে পুলিশ। পরের দিন চাদাবাজি মালায় শহিদুলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে কালকিনি থানা পুলিশ মাদারীপুর আদালতে হাজির করে।






মন্তব্য চালু নেই