মেইন ম্যেনু

বিয়ের পর প্রথম রাত

বিয়ের পর প্রথম রাতটিই যেকোনও দম্পতির জীবনের সেরা মূহুর্ত। নবজীবনে পা রেখে একে অপরের সঙ্গে কাটানো প্রথম রাত এটি। আর এই রাত নিয়েই প্রত্যেকটা মানুষ বিভিন্ন রকমের স্বপ্ন দেখেন। কিন্তু আপনার সামান্য কিছু ভুলের কারণেই এই রাত সুখকর নাও হতে পারে। তাই স্পেশাল রাতের জন্য চাই পুরুষদের বিশেষ প্রস্তুতি।

বিয়ের জন্য প্রত্যেক পুরুষকেই মানসিক ভাবে প্রস্তুত হতে নিতে হবে। বিয়ের পর জীবনের আমূল পরিবর্তন ঘটে। সেকারণেই অনেক পুরুষ নিজের আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন। কিন্তু নারীরা আত্মবিশ্বাসী পুরুষই বেশি পছন্দ করেন। তাই বিয়ের আগের থেকেই নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলুন। সেই সঙ্গে বিয়ে নিয়ে অহেতুক ভীতিও মন থেকে মুছে ফেলুন।

নারীরা সুঠাম দেহের পুরুষই বেশি পছন্দ করেন। বিয়ের আগে আপনার স্ত্রী যখন আপনার প্রেমিকা ছিলেন তখন হয়ত আপনাকে আনেকবারই ভুঁড়ি বা মেদ ঝড়াতে বলেছেন। তখন তার কথা না শুনলেও বিয়ের আগে তার সেই কথা গুলো মেনে নিন। সঠিক ব্যায়াম ডায়েট মেনে চলুন।

বিয়ের আগে অবশ্যই প্রয়োজন ঠিকঠাক গ্রুমিংয়ের। যতদিন প্রেম করেছেন সেটা জীবনের আলাদা অধ্যায়। এবার আপনি বিয়ে করতে চলেছেন মশাই, বিয়ের সময়ে বৌয়ের পাশাপাশি আপনিও সমান আকর্ষণীয়। সে কারণেই ঠিকঠিক চুলের ছাঁট, ত্বকের যত্ন ও শারীরিক পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দিন। বিয়ের রাতে সুগন্ধি ব্যবহার করতে একেবারেই ভুলবেন না।

জন্ম নিয়ন্ত্রণের বিষয়টাও কিন্তু পুরুষদেরই মাথায় রাখতে হয়। কারণ বিয়ের প্রথম রাতে অন্তত এই বিষয়ে স্ত্রীর উপর নির্ভর করবেন না। জন্ম নিয়ন্ত্রণের জন্য কোন পদ্ধতি গ্রহণ করবেন সেটি প্রথম রাতে আপনাকেই বেছে নিতে হবে। কারণ, ওই দিনে আপনিই একমাত্র নিজের মত করে বিষয়টি সামলে নিতে পারেন।

বিয়ের প্রথম রাতে হয়ত অনেক নারীই শারীরিক মিলনের জন্য মানসিক ভাবে প্রস্তুত হতে পারেননা। প্রেম বিবাহের ক্ষেত্রে এই বিষয়টি সহজ হলেও সম্বন্ধ দেখে বিয়ের ক্ষেত্রে নারীদের কাছে এই অনেকসময় সমস্যা হতে পারে। সেকারণেই এই বিষয়ে নারীরা মনে মনে তার স্বামী সহযোগিতা আশা করেন। তাই বিয়ের প্রথম রাতেই স্ত্রীর উপর জোর ফলাবেন না। তাকে মানসিক ভাবে সাহায্য করুন। কারণ প্রথম রাতেই জোর করে শারীরিক মিলনে লিপ্ত হলে এর পরের গোটা জীবন স্বাভাবিক নাও হতে পারন।

বিয়ের প্রথম রাতের অভিজ্ঞতাই কিন্তু আপনার গোটা দাম্পত্য জীবন সুখে কাটানোর মূল চাবিকাঠি। আর একটা কথা সব পুরুষরাই মানেন স্ত্রীকে খুশি রাখতে না পারলে জীবন সুখের হওয়া অসম্ভব নয়। সেকারণেই স্ত্রী জন্য আগে থেকেই একটা উপহার কিনে রাখুন। আর এটি অবশ্যই বিয়ের প্রথম রাতেই স্ত্রী হাতে তুলে দেবেন। এক্ষেত্রে কম দামি জিনিস দিচ্ছেন সেটা মূল বিষয় নয়। উপহারের সঙ্গে আপনার ভালবাসা কতটা মিশে রয়েছে সেটাই আসল। নতুন জীবনের শুরুতেই আপনার এই ভালবাসার উপহারে মুগ্ধ হবেন আপনার স্ত্রী।






মন্তব্য চালু নেই