মেইন ম্যেনু

বিশ্বকাপ মেসির শ্রেষ্ঠত্বের পরীক্ষা নয়, বলে দিলেন বড় রোনাল্ডো

দিলীপ মজুমদার (কলকাতা): দুটো বিশ্বকাপ মিলিয়ে মাত্র একটা গোল। ক্লাবের জার্সিতে বছরের পর বছর মাতিয়ে চলেছেন গোটা ফুটবলবিশ্ব। টানা চার বার ব্যালন ডি’অর সিংহাসনে নিজের কব্জায় রাখলেও, অনেকের মতেই বিশ্বমঞ্চে এখনও পুরোদমে দেখা যায়নি তাঁর প্রতিভার বিচ্ছুরণ। তিনিলিওনেল মেসি।

মঙ্গলবার ব্রাজিলের মাটিতে পা রাখল আর্জেন্তিনা। আর প্রত্যাশার পাহাড় নিয়েই বিমান থেকে নামলেন মেসি। যাঁর থেকে সমথর্ধকদের আশা, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর দেশ থেকে বিশ্বকাপ নিয়ে ফিরবেন তিনি। সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে প্রমাণ করবেন মঞ্চ যতই বড় হোক, তাঁর জবাব হবে আরও বড়। প্রতি বছর সাধারণত বার্সেলোনার হয়ে দুরন্ত ফর্মে থাকলেও দেশের জার্সিতে তা তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছেন মেসি। কিন্তু এ বছর ছবিটা দাঁড়াচ্ছে উল্টো। বার্সা জার্সিতে খুব ভাল খেলতে না পারলেও, বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে কিন্তু ছন্দে ছিলেন এলএম টেন।

‘হাওয়া বদলের’ এই আবহাওয়াই টেনশনের চোরাস্রোত অনেকটা দূর করছে। আর্জেন্তিনার প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ওসভাল্দো আর্দিলিস যেমন বলে দিলেন মেসিই সেই কান্ডারি যাঁর হাত ধরে স্বপ্ন দেখতে পারে আর্জেন্তিনা। তিনি বলেন, “প্রতি বছরের থেকে পরিস্থিতি একটু হলেও আলাদা। বার্সার হয়ে অত ভাল মরসুম না কাটালেও আর্জেন্তিনা জার্সিতে খুব ভাল ছন্দে ছিল। তাই আমরা আশাবাদী।” সঙ্গে যোগ করেন, “আমাদের বিশ্বকার জিততে হলে মেসিকে ভাল খেলতেই হবে। আমার মনে হয়, ও খুব ভাল খেলবে। এখন দেশের জার্সিতে ওকে অনেক ভাল দেখাচ্ছে।”

আর্দিলিসের মতোই প্রাক্তন আর্জেন্তিনীয় তারকা নলবার্টো আলোন্সোও মনে করছেন, ব্রাজিল বিশ্বকাপেই দেখা যাবে দেশের জার্সিতে মেসির সেরা ফর্ম। যাঁর মতে আর্জেন্তিনার হয়ে এলএম টেনের ছন্দহীন পারফরম্যান্সের পিছনে দায়ী বার্সেলোনা। যারা অনেক ছোট বয়সে ছিনিয়ে নেয় নিউওয়েল ওল্ড বয়েজের তরুণকে। “খুব ছোটবেলায় মেসিকে আর্জেন্তিনা ছাড়তে হয়। এই কারণেই ওর সমস্যা আরও বেড়েছে। ও ঠিক করে মানিয়ে নিতে পারেনি আর্জেন্তিনা টিমের পরিবেশের সঙ্গে। কিন্তু এখন সময় বদলাচ্ছে। মেসি জেতাতে পারেন কাপ,” বলেন আলোন্সো। ইন্টার মিলান কিংবদন্তি ও আর্জেন্তিনার হয়ে ১৪৫ ম্যাচ খেলা প্রাক্তন ডিফেন্ডার হাভিয়ের জানেত্তি আবার বলেন, “কোনও সন্দেহ নেই যে মেসির হাতেই উঠতে চলেছে বিশ্বকাপ। আমার খুব অবাক লাগে যখন সবাই বলে ও বার্সার হয়ে বেশি ভাল খেলে। এটা সবাই জানে যে ক্লাবে অনেক বেশি ম্যাচ খেলতে হয় ফুটবলারকে। তাই রোজ একজনের সঙ্গে খেলতে খেলতে সবাই অভ্যস্ত হয়ে যায়।”

শুধু মাত্র আর্জেন্তিনা জুড়ে নয়। মেসির জয়গান গাইতে ব্যস্ত ব্রাজিলিয়ানরাও। ২০০২ ব্রাজিল বিশ্বকাপের অন্যতম নায়ক রোনাল্ডো যেমন বলে দিচ্ছেন বিশ্বকাপ না জিততে পারলেও মেসির শ্রেষ্ঠত্বে কোনও দাগ লাগবে না। “ইতিহাসে অনেক ফুটবলার আছে যারা বিশ্বকাপ না জিতলেও সেরাদের তালিকায় জায়গা পেয়েছে। মেসি যদি বিশ্বকাপ নাও জিততে পারে, তবুও ওকে মানা হবে সেরাদের মধ্যে একজন।”

বিশ্ব জুড়ে ‘মেসির’ উপর স্পটলাইট যতই থাক, আর্জেন্তিনা কোচ আলেহান্দ্রো সাবেয়া কিন্তু পরিষ্কার বলে দিচ্ছেন, মেসির উপর সব চাপ দিলে হবে না। ব্রাজিল পৌঁছে বলেন, “মেসি দলের সেরা অস্ত্র। কিন্তু সবাইকে ভাল খেলতে হবে। না হলে ওর উপরে চাপ পড়তে বাধ্য।”

এবং জাবালেতা।






মন্তব্য চালু নেই